রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে চীনের তিন দফা প্রস্তাব

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২০ নভেম্বর ২০১৭, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৭:২৭
রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে তিন দফা (থ্রি-ফেজ) পরিকল্পনা প্রস্তাব করেছে চীন। এর প্রথমেই রয়েছে অস্ত্রবিরতি। এতে সমর্থন রয়েছে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের। এ কথা বলেছে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মিয়ানমারের রাজধানী ন্যাপিড সফরে রয়েছেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। তিনি বলেছেন, চীন বিশ্বাস করে বাংলাদেশে ও প্রতিবেশী মিয়ানমারের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার ভিত্তিতে গ্রহণযোগ্য সমাধান হতে পারে।
আর তৃতীয় ও শেষ দফা পরিকল্পনায় থাক উচিত দীর্ঘ মেয়াদী সমাধানের জন্য কাজ করা। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে বলা হয়, চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে রোববার দিনের শেষের দিকে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়। তাতে এই তিন দফার কথা তুলে ধরা হয়। তার প্রথমেই রয়েছে অস্ত্রবিরতির কথ। এরপরে জোর দেয়া হয়েছে দ্বিপক্ষীয় সংলাপে। তৃতীয় ও সর্বশেষ পর্যায়ে রয়েছে দীর্ঘমেয়াদী সমাধানের জন্য কাজ করা। চীনা পররাষ্ট্রমনত্রী ওয়াং ই বলেছেন, এরই মধ্যে অস্ত্রবিরতি শুরু হয়েছে। তবে আবার যেন তা নতুন করে শুরু না হয় এ বিষয়টি নিশ্চিত করা বা এমন পরিস্থিতি মোকাবিলা করা এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তিনি আশা করেন, এরই মধ্যে দেশ ছেড়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের ফেরত আনার বিষয়ে একধরণের ঐক্যমতে পৌঁছেছে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার। তাই তারা শিগগিরই এ বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করবে এবং তা বাস্তবায়ন করবে বলেও আশা করেন ওয়াং ই। তিনি মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচির সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় ওয়াং ই বলেন, এক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে সমর্থন ও উৎসাহ দিতে হবে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারকে, যাতে তারা প্রয়োজনীয় পরিবেশ ও সুষ্ঠু আবহ সৃষ্টি করতে পারে। এর আগে বাংলাদেশ সফর করেছেন ওয়াং ই। রয়টার্স লিখেছে, চীনের প্রস্তাবে বাংলাদেশের যেমন সমর্থন আছে, মিয়ানমারেরও একই অবস্থা। বাংলাদেশ সফরকালে ঢাকায় চীনা দূতাবাসে ওয়াং ই বলেছেন, পরিস্থিতিকে জটিল করে তোলা উচিত হবে না আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের। উল্লেখ্য, ২৫ শে আগস্ট আরাকান রোহিঙ্গা সালভেশন আর্মি মিয়ানমারের পুলিশ ও সেনাবাহিনীর ওপর হামলা চালায়। এতে কমপক্ষে ১১ নিরাপত্তা কর্মী নিহত হন। এরপরই প্রতিশোধ হিসেবে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে নৃশংস অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী। তারা ধর্ষণ, হত্যাযজ্ঞ, অগ্নিসংযোগ, প্রহার সহ এমন কোনো নিষ্ঠুরতা নেই, যা তারা করে নি। এর ফলে বাধ্য হয়ে জীবন বাঁচাতে ঝুঁকিপূর্ণ পথে পালিয়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেন কমপক্ষে ৬ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম। এর ফলে আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় নিন্দার ঝড় ওঠে। বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ায় বিশ্ব।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে যৌথভাবে যুদ্ধ করেছিল মুক্তিযোদ্ধারা

বিছানায় তুরস্কের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মেসুতের বড়ছেলের মৃতদেহ

গোয়া: যৌন ব্যবসায়ও আধার কার্ড

ট্রাম্প শিবিরের হাজার হাজার ইমেইল মুয়েলারের হাতে

পেট্রলবোমায় দুজন দগ্ধ

যেভাবে উগ্রপন্থায় দীক্ষিত হন আকায়েদ উল্লাহ

ঝন্টুর পেশা রাজনীতি

রিয়াল মাদ্রিদই চ্যাম্পিয়ন

‘জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা অবশ্যই বাতিল করতে হবে’

উড়ে গেল টটেনহ্যমও

ছায়েদুল হকের জানাজা সম্পন্ন

ভারতে 'ছয় মাসের মধ্যে' ধর্ষকদের ফাঁসির দাবি করলেন নারী অধিকারকর্মী

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী শ্রমিক পাচার চক্র, কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে ৬০০ কর্মকর্তা বদলি

জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে নোটিশ জারিতে ইন্টারপোলের অস্বীকৃতি

ব্রাজিল ফুটবলের প্রধান ৯০ দিন নিষিদ্ধ

ঝিকরগাছায় ছাত্রলীগ কর্মী খুন, সড়ক অবরোধ