জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে তীব্র নিন্দা, সহিংসতা বন্ধের আহ্বান

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৫৬
রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে সহিংসতা বন্ধের পদক্ষেপ  নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। বুধবার রুদ্ধদ্বার বৈঠকে রোহিঙ্গাদের কাছে মানবিক সাহায্য পৌঁছে দিতে ত্রাণকর্মীদের রাখাইনে প্রবেশের অনুমতি দেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। ওদিকে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টনিও গুতেরাঁ আবারো রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের নাগরিকত্ব দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। বলেছে, নাগরিকত্ব না হলেও কমপক্ষে এমন একটি আইনগত অবস্থা তাদের দিতে হবে, যার আওতায় তারা স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারেন। জাতিসংঘের ৭২ তম সাধারণ অধিবেশনের উদ্বোধন করে প্রথম সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানান গুতেরাঁ। ইউএন নিউজ সেন্টার ও বিভিন্ন বার্তা সংস্থার রিপোর্টে এ কথা বলা হয়েছে।
এতে আরো বলা হয়, বুধবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ইথিওপিয়ার রাষ্ট্রদূত তেকেদা আলেমু। তিনি রোহিঙ্গা ইস্যুতে ওই বৈঠকের পর সাংবাদিকদের বলেন, সেনাবাহিনীর অভিযানের সময় অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগের বিষয়ে কড়া নিন্দা জানিয়েছেন নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা। পাশাপাশি রাখাইনে সহিংসতা বন্ধে অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানানো হয়েছে। ওদিকে জাতিসংঘে নিযুক্ত বৃটিশ রাষ্ট্রদূত ম্যাথিও রাইক্রোফ বলেছেন, গত ৯ বছরের মধ্যে এবারই প্রথম নিরাপত্তা পরিষদ মিয়ানমার ইস্যুতে একটি একক বিবৃতিতে একমত হয়েছে। ওদিকে রাখাইনে সাম্প্রতিক ভয়াবহ সহিংসতায় মিয়ানমারের ওপর সারা বিশ্ব থেকে চাপ অব্যাহত রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বেসামরিক জনগণকে নিরাপত্তা দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে। বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহণকারীদের জন্য সেফ জোন বা নিরাপদ এলাকা ঘোষণার দাবি জানানো হয়েছে, যাতে তারা দেশে নিজ বাড়িতে ফিরতে পারে। বুধবার দিনের শুরুতে রাখাইনে মিয়ানমারের সেনবাহিনীর অভিযান বন্ধের আহ্বান জানাতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আহ্বান জানায় বৃটেন ও সুইডেন। জাতিসংঘে নিযুক্ত বৃটিশ উপ রাষ্ট্রদূত জনাথন অ্যালেন সাংবাদিকদের বলেছেন, আমরা সহিংসতা বন্ধ দেখতে চাই। আমরা দেখতে চাই দ্রুততার সঙ্গে এবং ব্যাপক হারে মানবিক সহায়তার সুযোগ দেয়া হয়েছে এবং মিয়ানমারের লোকদের কাছে, রাখাইনের লোকদের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। সুইডেনের রাষ্ট্রদূত ওলোফ স্কোগ বলেছেন, বৈঠকে একটি ঐক্যমতের ভিত্তিতে একটি সিদ্ধান্ত আসুক তিনি তা দেখতে চেয়েছিলেন। এবং দখতে চেয়েছিলেন এখন (রাখাইনে) যা ঘটছে তার প্রেক্ষিতে একটি পরিস্কার বার্তা। এই বার্তাটি হতে  পারেমানবাধিকার ও আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি পূর্ণ সম্মান দেখানো। এর আগেও জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছিল। কিন্তু সে বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়া হয় নি। ওদিিেক মিয়ানমারের ওপর চাপ বাড়াতে নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিভিন্ন মানবাধিকার বিষয়ক গ্রুপ। হিউম্যান রাইটস ওয়াচের ফিল রবার্টসন নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে সারা বিশ্বব্যাপী অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা দিতে। তবে এক্ষেত্রে চীন বাধা দেবে বলেও তিনি মনে করেন। তারা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, দক্ষিণ এশিয়ায় প্রাধান্য বিস্তারে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে। তাই মিয়ানমারের উন্নয়ন ও স্থিতিশীলতায় গৃহীত সরকারের সুরক্ষামুলক পদক্ষেপের প্রতি অকুণ্ঠ সমর্থন জানিয়েছে চীন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষণের দাবি

এখনও আসছে রোহিঙ্গারা, সমঝোতা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

৯০ টাকা ছাড়ালো পিয়াজের কেজি

বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি মামুলি ব্যাপার

‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’

চিরঘুমে লোকসংগীতের মহীরুহ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বন্যার ক্ষতি পোষাতে দরকার ১০০ কোটি টাকা

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ

দুই দলেই হেভিওয়েট প্রার্থী

দরিদ্রদের জন্য বিচারের বাণী নীরবে কাঁদে

৭ই মার্চ ভাষণের স্বীকৃতিতে দেশব্যাপী শোভাযাত্রা আজ

সম্মতিপত্র প্রকাশের দাবি বিএনপির

ঘরে ঘুরে দাঁড়ালো চিটাগং

মিশরে মসজিদে জঙ্গি হামলা, নিহত কমপক্ষে ২৩০

‘শেষ মুহূর্তে হলে সরকার সমঝোতায় আসবে’

রবি-সোমবার সব সরকারি কলেজে কর্মবিরতি