যৌথ প্রযোজনায় চলচ্চিত্র নির্মাণ

জনমতের ভিত্তিতে হবে চূড়ান্ত নীতিমালা

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্রের নীতিমালা নিয়ে কয়েক মাস আগে থেকেই ছিল আন্দোলন। চলচ্চিত্রের অনেক শিল্পী-কলাকুশলীর দাবি ছিল, নীতিমালা পরিবর্তন করা হোক। সঠিক নীতিমালায় নির্মাণ হোক যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র। এসব দাবি আমলে নিয়ে যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র নির্মাণের নতুন খসড়া নীতিমালা প্রকাশ করেছে সরকার। তথ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালের নীতিমালাকে ভিত্তি ধরে নতুন নীতিমালাটি করা হয়েছে। আগামী ২০শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ খসড়া নীতিমালার ওপর জনমত গ্রহণ করা হবে। জনমতের উপর ভিত্তি করে চূড়ান্ত নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে। সোমবার তথ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এটি প্রকাশ করা হয়। নীতিমালায় যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র নির্মাণের ক্ষেত্রে চুক্তিপত্রের নোটারাইজড কপি, চিত্রনাট্য, নির্মাণ পরিকল্পনা, লোকেশন বর্ণনা, প্রি-প্রোডাকশন ও পোস্ট প্রোডাকশনসহ শুটিং শিডিউল, বাজেট, বিনিয়োগের পরিমাণ, পরিচালক, শিল্পী এবং অন্য কলাকুশলীর নামের তালিকা স্পষ্টভাবে উল্লেখ এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করতে বলা হয়েছে। যৌথ প্রযোজনার ক্ষেত্রে প্রধান চরিত্রে অভিনয়শিল্পী এবং মুখ্য কারিগরি কর্মীসহ শিল্পী ও কলাকুশলী সমানুপাতিকহারে নিয়োগের বিষয়টি শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে। শিল্পী এবং কলাকুশলী কমবেশি করার প্রয়োজন হলে আবেদনপত্রে তার যৌক্তিকতা প্রদর্শন করতে হবে। কাহিনীকার, সংলাপ রচয়িতা, চিত্রনাট্যকার, গীতিকার, সুরকার, সংগীত পরিচালক, গায়ক-গায়িকা, নৃত্য পরিচালক, কোরিওগ্রাফার, চিত্রগ্রাহক, সম্পাদকসহ চলচ্চিত্র নির্মাণের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত অন্যান্য ব্যক্তি কারিগরি কর্মী ও কলাকুশলী হিসেবে বিবেচিত হবেন। নীতিমালায় আরো বলা হয়েছে, যৌথ প্রযোজনায় নির্মিতব্য চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য পরীক্ষা ও পর্যালোচনাসহ পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাব পরীক্ষা করে নির্মাণের অনুমোদনের জন্য সুপারিশ বা মতামত দিতে এবং নির্মাণ শেষে চলচ্চিত্র দেখে প্রদর্শনের জন্য চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে দাখিলের ছাড়পত্র দিতে বিএফডিসিতে (বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন) একটি বাছাই কমিটি গঠন করা হবে। এ কমিটির সভাপতি হবেন বিএফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক। এ ছাড়া কমিটিতে সদস্য হিসেবে থাকবেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (চলচ্চিত্র), বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির প্রতিনিধি, পরিচালক সমিতির প্রতিনিধি, শিল্পী সমিতির প্রতিনিধি, প্রদর্শক সমিতির প্রতিনিধি ও সরকারের মনোনীত একজন চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব। বিএফডিসির পরিচালক (উৎপাদন) এই কমিটিতে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন। নতুন নীতিমালার প্রসঙ্গে বিএফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন কুমার ঘোষ বলেন, যে খসড়া নীতিমালা সরকার তৈরি করেছে, তা চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনা করেই তৈরি করা হয়েছে। আমি মনে করি, এ নীতিমালা সবার কাছেই গ্রহণযোগ্য হবে। চলচ্চিত্র পরিবারের আহ্বায়ক চিত্রনায়ক ফারুক বলেন, যৌথ প্রযোজনার নীতিমালা নিয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয়েছে। নীতিমালায় কী কী থাকা জরুরি, আমরা তা জানিয়েছি। আমার বিশ্বাস, যৌথ প্রযোজনার নীতিমালায় সরকারের দেশীয় চলচ্চিত্র রক্ষার বিষয়গুলো গুরুত্ব পাবে। শাকিব খান বলেন, দেশীয় চলচ্চিত্রের উন্নয়নের জন্য যে নীতিমালা সরকার করবে তা আশা করি সকলের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। প্রযোজক নাসিরউদ্দিন দিলু বলেন, যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র নির্মাণ নিয়ে অনেকের অভিযোগ ছিল। তবে নতুন খসড়া নীতিমালায় যেসব বিষয় তুলে ধরা হয়েছে তা বেশ জরুরি। নতুন নীতিমালা সবার কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে বলে মনে করছি।

 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের ব্যাপক আন্তর্জাতিক সহযোগিতা প্রয়োজন: ইউএনএইচআরসি

ভিত্তিহীন খবরে তোলপাড়

মার্কেল?

ফের সীমান্তে রোহিঙ্গা স্রোত

সন্তানদের সামনেই শামিলাকে ধর্ষণ করে বার্মিজ সেনারা

মন্ত্রী-এমপিরা আমাদের সঙ্গে আছেন

মনোনয়ন দৌড়ে ২৩ নেতা

ট্রাকচালক থেকে সপরিবারে ইয়াবা ব্যবসায়ী

খুচরা বাজারেও কমেছে চালের দাম

বাড়লো আটার দাম

মালিতে ৩ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী নিহত

উল্টো পথে যাওয়া প্রতিমন্ত্রী, সচিবের গাড়িসহ ৫০ যানবাহনকে জরিমানা

উল্টো পথে গাড়ি জরিমানা গুনলেন প্রতিমন্ত্রী ও সচিবরা

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বিএনপির তিন প্রস্তাব

মালিতে বিস্ফোরণে ৩ বাংলাদেশী শান্তিরক্ষী নিহত

নারায়ণগঞ্জে ঘুষ গ্রহণকালে হাতেনাতে গ্রেপ্তার ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার