কিছু অপশক্তি প্রতিনিয়ত অপপ্রচার করে যাচ্ছে

ফেসবুক ডায়েরি

| ১১ জুন ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:১৫
বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, গবেষক মোহাম্মদ এ আরাফাত লিখেছেন, কিছু কিছু ব্যাংকে অনিয়ম এবং দুর্নীতি হয়েছে এটা সত্যি কথা। কিন্তু এটাও সত্যি যে, সরকার প্রতিটি বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছে। আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। কেউই ছাড় পাবে না। যদিও আমরা অতীতে দেখেছি বিএনপি-জামায়াত শাসন আমলে ওরিয়েন্টাল ব্যাংকটি পুরো ধসে গেল, কোনো আইনি ব্যবস্থাই নেয়া হয়নি। বর্তমানে যেখানেই অনিয়ম হচ্ছে সেখানেই ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
অথচ কিছু অপশক্তি প্রতিনিয়ত অপপ্রচার করে যাচ্ছে।
‘লুটেরা চক্র’ শব্দটা এখন একটা গল্প হয়ে গেছে। সকল যুক্তি যেখানে হারিয়ে যায়, সেখানেই চলে আসে এই শব্দের ব্যবহার। পদ্মা সেতু নিয়েও এরকমই গল্প ফাঁদা হয়েছিল। সুশীল সমাজ আর বিএনপি-জামায়াত-বামাত দল বেঁধে মিথ্যা প্রচারণায় নামলো। কিন্তু দেখা গেল কি? কানাডিয়ান কোর্ট তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে দুর্নীতির অভিযোগ উড়িয়ে দিলো। তথ্য প্রমাণ আর যুক্তি যে সমাজে নেই, আছে শুধু কথার ফুলঝুরি সে সমাজ এগিয়ে যায় না।
এর আগে সব ধরনের আমানতেই (এমনকি ১,০০,০০০ টাকার নিচে আপনার ২০,০০০ হলেও) ৫০০ টাকা শুল্ক ছিল। নতুন প্রস্তাবে ১,০০,০০০ টাকার নিচের আমানতে এটা সম্পূর্ণ প্রত্যাহার করা হয়েছে। বাংলাদেশের ব্যাংকগুলোতে মোট আমানতকারীর শতকরা ৮০% ভাগের আমানত ১,০০,০০০ টাকার নিচে। সরকার এই বাজেটে কৃষক, জেলে, কামার, কুমার, দিনমজুর, রিকশাচালক, শ্রমিক, গার্মেন্টকর্মীসহ এই ৮০ ভাগ ডিপোজিটরদের ঊীপরংব উঁঃু রহিত করেছেন। যা আগে ছিল ১৫০ কিংবা ২৫০............।
তাহলে যারা ‘সরকার ব্যাংকে আমার জমা টাকা সব নিয়ে গেল’ বলে চেঁচামেচি করছেন তারা কারা? সরকার তো দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর স্বার্থই সবার আগে দেখবে। তাই না? ৮০% গরিব মানুষকে এখন কোনো পয়সা দিতে হবে না। এটা কি খুব খারাপ হলো?
আমানতের ওপর বীপরংব ফঁঃু থাকা উচিত কিনা, এটা একটা মৌলিক প্রশ্ন। এই প্রশ্ন আপনি তুলতেই পারেন। কিন্তু এটা তো নতুন নয়। আগেও ছিল। শুধু গরিব মানুষদের এটা থেকে রেহাই দেয়া হয়েছে আর যাদের অপেক্ষাকৃত বেশি টাকা আছে তাদের ক্ষেত্রে কিছুটা বাড়ানো হয়েছে। মৌলিক প্রশ্ন উঠিয়ে যদি বলেন যে ঊীপরংব উঁঃু আমানতের ওপর থাকাই উচিত না, আমি আপনার সঙ্গে একমত হবো এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে নিবেদনও করবো এটিকে উঠিয়ে দেয়ার জন্য। কিন্তু, আপনার কাছে আমার মৌলিক প্রশ্ন থেকেই যাবে, দেশের গরিব মানুষ যখন এই কর দিচ্ছিল আপনি তখন কথা বলেননি কেন? তাহলে কি দেশ চলবে শুধুমাত্র ২৫ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীদের স্বার্থই শুধু রক্ষা করে, যারা চাইলেই ‘হাউকাউ’ বাঁধাতে পারে? আসলে আপনারা সবাই স্বার্থপর। দেশের বেশিরভাগ মানুষ সরব হতে পারে না। তাই শেখ হাসিনাকেই তাদের স্বার্থচিন্তা করতে হয়।
 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Nirvrosto

২০১৭-০৬-১৪ ১৮:৩০:২১

গবেষক সাহেব কি স্বরচিত রবীন্দ্র সঙ্গীত গাইলেন ?

tahir

২০১৭-০৬-১৩ ০৪:৪০:১৩

Dear Mr. Arafat soo many example we can give you against of current govt. & finally govt. put hand on Islami bank. can you tell us, why govt. want to control by capturing top management. we never saw any conflict inside islami bank but when govt. involved in it problems started which are infront of all people of Bangladesh. People put their money in the bank after vat paid, why will be paid again for the deposits amount whatever may be.

zahangir

২০১৭-০৬-১১ ০৮:২৪:২৩

Sala onek boro dalal.... India er no 1 dalal.

সোহাগ

২০১৭-০৬-১০ ২১:১৫:৩১

গবেষক মোহাম্মদ এ আরাফাত! উনি মূলত কি নিয়ে গবেষণা করেছেন? ওরিয়েন্টাল ব্যাংকটি পুরো ধসে গেল, কেন গেল এটা তো বেসরকারি ব্যাংক ছিল, বি এন পির কোন নেতা এর ডিরেক্টর ছিল? এটা কি রাজনয়তিক কারণে দেউলিয়া হল? এই গবেষণা প্রচার করুন। এখন প্রতিটা ব্যাংক নষ্ট হয়েছে রাজনয়তিক কারণে, এই গবেষণা টা উপস্থাপন করেন না কেন? ***পা না চাটলে, গবেষণা করে শমি বিয়ে করে লাইম লাইটে আসা টা ভাল চতুরতার লখখন বটে। সঠিক গবেষণা উপস্থাপন করুন!

mostahar

২০১৭-০৬-১০ ২০:২৪:৪৬

লেখকের লেখায় মনে হচ্ছে ব্যাংক ডাকাতি এ দেশে বৈধ আর সরকার এর পিছনে আইনী ব্যবস্হা নিয়ে দৌড়াতে থাকবে। আমার প্রশ্ন যারা ব্যাংকের টাকা লুট করার ব্যবস্হা করে দিল তারা কারা? এই সরকারের সময়ে কতগুলো ব্যাংকে এভাবে লুটপাট হয়েছে তার সংখ্যা ও টাকার পরিনাম দেননি। লজ্জা পাচ্ছিলেন মনে হয়?

নাম প্রকাশে অনিচছুক

২০১৭-০৬-১০ ১৭:০৫:০৩

তেল মারা লোক।

mahbubur rahman

২০১৭-০৬-১০ ১৫:২৫:০৫

আমার প্রশ্ন জনাব আরাফাত রহমানের কাছে,শুরুতে আপনার যে পরিচয় দিয়েছেন, এটাকে একটু পরিবর্তন করে দিলে কারো কোনো আপত্তি থাকার কথা না এবং সেটাই আপনার আসল পরিচয়,,,জনগণ সবই বোঝে সময় হলে ঠিকই টের পাবেন।

Selina

২০১৭-০৬-১০ ১৫:১৪:৫৩

Could not understand .

সুব্রত নাথ

২০১৭-০৬-১০ ১৪:১৫:৪২

বটে, বটে! চুরিচামারি আর বেহায়া দালালির বিরুদ্ধে কথা বললেই 'অপশক্তি' হয়ে যায়। চোর-বাটপাড় আর তাদের উচ্ছিষ্টখোর দালালেরাই হলো পরম শুভশক্তি। আহা, সুভাগা এই দেশ এমন ধন্য আর কোন জমানায় হয়েছে গো!!

আপনার মতামত দিন

ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে যৌথভাবে যুদ্ধ করেছিল মুক্তিযোদ্ধারা

বিছানায় তুরস্কের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মেসুতের বড়ছেলের মৃতদেহ

গোয়া: যৌন ব্যবসায়ও আধার কার্ড

ট্রাম্প শিবিরের হাজার হাজার ইমেইল মুয়েলারের হাতে

পেট্রলবোমায় দুজন দগ্ধ

যেভাবে উগ্রপন্থায় দীক্ষিত হন আকায়েদ উল্লাহ

ঝন্টুর পেশা রাজনীতি

রিয়াল মাদ্রিদই চ্যাম্পিয়ন

‘জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা অবশ্যই বাতিল করতে হবে’

উড়ে গেল টটেনহ্যমও

ছায়েদুল হকের জানাজা সম্পন্ন

ভারতে 'ছয় মাসের মধ্যে' ধর্ষকদের ফাঁসির দাবি করলেন নারী অধিকারকর্মী

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী শ্রমিক পাচার চক্র, কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে ৬০০ কর্মকর্তা বদলি

জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে নোটিশ জারিতে ইন্টারপোলের অস্বীকৃতি

ব্রাজিল ফুটবলের প্রধান ৯০ দিন নিষিদ্ধ

ঝিকরগাছায় ছাত্রলীগ কর্মী খুন, সড়ক অবরোধ