মোদির সমালোচনা করার অধিকার নেই আফ্রিদির: কানেরিয়া

স্পোর্টস ডেস্ক

খেলা ২৮ মে ২০২০, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:০১

 
সম্প্রতি ভারত অধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে শহীদ আফ্রিদির এক মন্তব্য তোলপাড় সৃষ্টি করেছে। পাকিস্তানের সাবেক এই অলরাউন্ডার বলেন, ‘বিশ্ব এখন বড় অসুখে আক্রান্ত। কিন্তু তার চেয়েও বড় অসুখ নরেন্দ্র মোদির মস্তিষ্কে। মোদি কাশ্মীরে ধর্মের নামে নৈরাজ্য চালাচ্ছেন। সেখানে সাত লাখ সেনা মোতায়েন করেছেন, যা পাকিস্তানের মোট সেনা সংখ্যার সমান।’ তার এই মন্তব্য ভালোভাবে নেয়নি ভারতীয় ক্রিকেটাররা। গৌতম গম্ভীর-সুরেশ রায়নারা তো কড়া জবাব দিয়েছেনই, করোনা দুর্যোগে আফ্রিদির পাশে থাকা যুবরাজ-হরভজন সিংও ছেড়ে কথা বলেননি তাকে।
এবার নিজ দেশের ক্রিকেটার দানিশ কানেরিয়ার সমালোচনা শুনতে হলো আফ্রিদিকে। কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতি আঙুল তোলায় আফ্রিদির ওপর চটেছেন তার সাবেক সতীর্থ কানেরিয়া। পাকিস্তানের হিন্দু ধর্মালম্বী এই ক্রিকেটার স্পষ্ট ভাষায় বলেছেন, ‘ভারত ও মোদির সমালোচনার অধিকার নেই আফ্রিদির।
কোনো বিষয়ে কথা বলার আগে আফ্রিদির ভাবা উচিত। রাজনীতিতে যোগদানের ইচ্ছা থাকলে ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট সবকিছু বাদ দিতে হবে তাকে। তুমি যদি রাজনীতিবিদদের মতো কথা বলো তাহলে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকাটা তোমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তোমার এসব মন্তব্য শুধু ভারতে নয়, সারাবিশে^ই^ পাকিস্তানের ক্রিকেট ইমেজ ক্ষুণ্ন করে।’
আফ্রিদির বিরুদ্ধে কথা বলা কানেরিয়ার জন্য নতুন কিছু নয়। কিছুদিন আগে তিনি অভিযোগ করেন, আফ্রিদি তার ক্যারিয়ার ধ্বংস করেছেন। আফ্রিদির কারণেই নাকি পাকিস্তানের হয়ে ১৮টির বেশি ওয়ানডে খেলার সুযোগ হয়নি তার। ৩৯ বছর বয়সী কানেরিয়া বলেন, ‘তার কারণে আমি বেশি ওয়ানডে খেলতে পারিনি। ঘরোয়া ক্রিকেটে একই দলে খেলার সময় সে আমার প্রতি অবিচার করতো। সে অধিনায়ক ছিল। আমাকে প্রায়ই দলের বাইরে রাখতো। কোনো কারণ ছাড়াই ওয়ানডেতেও একই কাজ করতো সে। ‘আমি ছিলাম লেগ স্পিনার। সেও তাই। ওটা ছিল আরেকটা কারণ। তারা প্রায়ই বলতো একাদশে দুজন লেগি খেলতে পারে না। বলতো সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে আমার ফিল্ডিংয়ে সমস্যা আছে। কিন্তু পাকিস্তান দলে ভালো ফিল্ডার ছিল দু-একজন।’
পাকিস্তানের হয়ে ৬১ টেস্টে ২৬১ উইকেট নিয়েছেন লেগস্পিনার কানেরিয়া। ২০১০ সালে নটিংহ্যামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সবশেষ টেস্ট খেলেন তিনি। ২০০৯ সালে ইংল্যান্ডের কাউন্টিতে এসেক্সের হয়ে খেলার সময় স্পট ফিক্সিং করেছিলেন কানেরিয়া। এ কারণে তাকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ করে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। ২০১৮ সালে ফিক্সিংয়ের কথা স্বীকার করেন এই বোলার।

আপনার মতামত দিন

খেলা অন্যান্য খবর



খেলা সর্বাধিক পঠিত