নিউ ইয়র্কের দিনরাত

আমেরিকার মেমোরিয়াল ডে এবার পালিত হবে ভিন্নরুপে ১৫২ বছরের ইতিহাসে ব্যতিক্রম

মনির হায়দার, নিউ ইয়র্ক থেকে

অনলাইন ২২ মে ২০২০, শুক্রবার, ২:৪৬ | সর্বশেষ আপডেট: ৬:২৪

যুক্তরাষ্ট্রের ঐতিহ্যবাহী মেমোরিয়াল ডে এবারই প্রথম পালিত হতে যাচ্ছে সম্পূর্ণ ভিন্নরুপে। জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিবসটি পালন উপলক্ষে বড় কোনো শোভাযাত্রার আয়োজন থাকছে না এ বছর। করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে আমেরিকার সর্বত্রই এখন বড় জমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। নিউ ইয়র্ক স্টেটে যে কোনো উপলক্ষে সর্বোচ্চ ১০ জনের জমায়েতের অনুমতি দেয়া হচ্ছে, তাও বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরা এবং যথাযথ সামাজিক ও ব্যাক্তিগত দূরত্ব বজায় রাখার শর্তে। অন্য স্টেটগুলোতেও রয়েছে প্রায় একই ধরণের বিধিনিষেধ। সে কারণে ১৫২ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম মেমোরিয়াল ডে পালিত হবে অনাড়ম্বর আয়োজনে।
প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের সশস্ত্রবাহিনীর যেসব সদস্য কর্মরত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানানোর উদ্দেশ্যে ১৮৬৮ সাল থেকে নিয়মিতভাবে পালিত হয়ে আসছে মেমোরিয়াল ডে। দিনটিকে একইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে অনানুষ্ঠানিকভাবে গ্রীষ্মকালের সূচনা হিসাবে বিবেচনা করা হয়।
এই দিবস উপলক্ষে আমেরিকার ছোটবড় সকল নগরী এবং শহরেই বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করার রেওয়াজ রয়েছে। মৃত্যুবরণকারী প্রত্যেক সৈনিকের সমাধিতে এদিন স্বেচ্ছাসেবকরা আমেরিকার জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এছাড়াও দিবসটি পালন উপলক্ষে সমাধি-সৌধ পরিদর্শনসহ মৃত সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর আরও নানা রকম আয়োজন থাকে। কিন্তু ব্যতিক্রম ঘটতে যাচ্ছে এ বছর।
শুরু থেকে ১৯৭০ সাল পর্যন্ত দিবসটি পালিত হতো মে মাসের ৩০ তারিখে। কিন্তু ১৯৭০ সালের পর এই ধারায় পরিবর্তন আনা হয়। গত ৫০ বছর ধরে মেমোরিয়াল ডে পালিত হয় মে মাসের শেষ সোমবার। সেই হিসাবে এ বছর দিবসটি পালিত হবে আগামী ২৫ মে সোমবার। নিউ ইয়র্কের গভর্ণর অ্যান্ড্রু কুমো এরইমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন যে, মেমোরিয়াল ডে পালনের ক্ষেত্রে গণজমায়েতের বর্তমান বিধিনিষেধে কোনো পরিবর্তন হবে না। সর্বোচ্চ ১০ জনের সমন্বয়ে প্যারেড বা শোভাযাত্রা করা যাবে এবং সেটাও করতে হবে মুখে মাস্ক পরে ও যথাযথ দূরত্ব বজায় রেখে।
যুক্তরাষ্ট্রের সশস্ত্রবাহিনীর সদস্যদের সম্মান জানাতে মোট তিনটি জাতীয় দিবস পালন করা হয়। মেমোরিয়াল ডে ছাড়াও বাকি দু’টি দিবস হলো যথাক্রমে ভ্যাটারানস ডে ও আর্মস ফোর্সেস ডে। এরমধ্যে ভ্যাটারানস ডে পালন করা হয় সশস্ত্রবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্যদের সম্মান জানাতে এবং আর্মস ফোর্সেস ডে পালন করা হয় সশস্ত্রবাহিনীর কর্মরত সদস্যদের প্রতি সম্মান জানানোর উদ্দেশ্যে। তিনটি দিবসই জাতীয়ভাবে সরকারি ছুটির দিন।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



৩১শে মে থেকে খুলছে অফিস, ঘুরবে চাকাও

১৫ দফা নির্দেশনায় যা বলা হয়েছে