একরাম হত্যার রায় কার্যকর নিয়ে শঙ্কা, ধরা-ছোয়ার বাইরে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত ১৭ আসামি

ফেনী প্রতিনিধি

বাংলারজমিন ২০ মে ২০২০, বুধবার

ফেনীর আলোচিত উপজেলা চেয়ারম্যান একরামুল হক একরাম হত্যার ছয় বছর আজ (২০ মে)। ২০১৪ সালের এই দিনে ফেনী শহরের একাডেমী এলাকায় প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে, গুলি করে ও তার ব্যবহৃত পাজারো গাড়ীতে আগুন ধরিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। হত্যাকান্ডটি শুধু দেশে নয়, বিশ্ব মিডিয়াতে ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত হয়েছিল।

ফেনী জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাডভোকেট হাফেজ আহম্মদ জানান, ঘটনার দিন রাতে নিহতের বড় ভাই জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে ততকালীন বিএনপি নেতা মাহাতাব উদ্দিন আহমেদ চৌধুুরী মিনারকে প্রধান আসামী করে ফেনী মডেল থানায় হত্যা মামলা দয়ের করেন। মামলাটি দীর্ঘ বিচার কাজ শেষে ২০১৮ সালেল ১৩ মার্চ ফেনীর দায়রা জজ আদালতের বিচারক আমিনুল হক রায় ঘোষনা করেছিলো। রায়ে দেশের ইতিহাসে সর্ব্বোচ্য ৩৯ আসামীকে ফাঁসির আদেশ প্রদান করে বিচারক। রায়ে প্রধান আসামী বিএনপির নেতা মিনার চৌধুরী, যুবলীগ নেতা জিয়াউল আলম মিস্টার, একরামের একান্ত সহযোগী ততকালীন আওয়ামী লীগ নেতা বেলাল হোসেন পাটোয়ারী ওরফে টুপি বেলালসহ খালাস পায় ১৬ জন।

আসামীপক্ষের আইনজীবী আহাসান কবীর বেঙ্গল জানান, দন্ডপ্রাপ্ত আসামীদের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের ততকালীন যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির আদেল, ফেনী পৌরসভার ততকালীন কাউন্সিলর আবদুল্লাহ হিল মাহমুদ শিবলুসহ ২২ জন আসামী কারাগারে থাকলেও পলাতক রয়েছে ১৭ আসামী।
নিম্ন আদালতে রায় ঘোষনার কয়েক দিন পর উচ্চ আদালতে আপিল করে দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা।

আইনজীবী আহাসান কবীর বেঙ্গল আরো জানান, রায়ের পর আসামীদের ফেনী জেলা কারাগার থেকে ঢাকার কাশিমপুরের হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হয়। তবে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামীদের মধ্যে ততকালীন আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর কবির আদেল সহ বেশ কয়েকজন আসামী ফেনী কারাগারে রয়েছে। এসব আসামীরা অন্যান্য আরো কয়েকটি মামালার আসামী হওয়ায় মামলার নিয়মিত হাজিরা দিতে তারা ফেনী কারাগারে রয়েছে। এছাড়া দন্ডপ্রাপ্ত আরেক আসামী আবদুল্লাহ হিল মাহমুদ শিবলু কুমিল্লা জেলা কারাগারে রয়েছে।

ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত যেসব পলাতক আসামী ধরা-ছোয়ার বাহিরে তারা হল : ফুলগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের ততকালীন যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন জিহাদ, ফেনী-২ আসনের সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারির মামাতো ভাই আবিদুল ইসলাম আবিদ, চৌধুরী মো. নাফিজ উদ্দিন অনিক, আরমান হোসেন কাউসার, জাহেদুল হাসেম সৈকত, জিয়াউর রহমান বাপ্পি, জসিম উদ্দিন নয়ন, এমরান হোসেন রাসেল ওরফে ইঞ্জিনিয়ার রাসেল, রাহাত মো. এরফান ওরফে আজাদ, একরাম হোসেন ওরফে আকরাম, শফিকুর রহমান ওরফে ময়না, কফিল উদ্দিন মাহমুদ আবির, মোসলে উদ্দিন আসিফ, ইসমাইল হোসেন ছুট্টু, মহিউদ্দিন আনিছ, বাবলু, টিটু।

নিম্ন আদালতে রায় ঘোষনার ১৪ মাস অতিবাহিত হলেও উচ্চ আদালতে আপিলের শুনানী না হওয়ায় রায় কার্যকর নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে স্বজনরা। তবে রায়ের পর থেকে নিহতের স্ত্রীসহ পরিবারের তেমন কোন সদস্য গণমাধ্যমের সাথে রায় নিয়ে কোন ধরনের মন্তব্য করেননি।

নিহত একরামের ভাই মোজাম্মেল হক জানান, দোষীরা উপযুক্ত শাস্তি পেলেও পর্দার আড়ালে থেকে গেছে ঘটনার মুল হোতা। তবে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা যেন উচ্চ আদালত থেকে কোন ভাবে রেহাই না পায় সেদিকে সরকারকে দৃষ্টি দিতে হবে। একই সাথে রায় দ্রুত কার্যকর করতে সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে।

একরামের মৃত্যু বাষির্কী উপলক্ষে নিহতের গ্রামের বাড়িতে পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে করোনাভাইরাস ও ঘূণিঝড় আম্পানের কারণে একরামের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে দলীয় কোন কর্মসূচী নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল আলিম। তবে এলাকার মসজিদগুলোতে নামাজের পর বিশেষ মোনাজাত করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

রিপন

২০২০-০৫-২০ ২১:৪৮:২৯

যতদিন আউয়ামি লুটপাট সিনডিকেট লিক ক্ষমতায় থাকবে ততদিন রায় কার্যকর হবে না এবং হত্যাকাণ্ডের মূল ক্রিমিনাল গ্রেপ্তার হবে না। নানা নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাতে দেশে বিদেশে আলোড়ন সৃষ্টিকারী প্রকাশ্য দিবালোকে সংঘটিত এই পৈশাচিক নরহত্যার তথ্য মিলেছে প্রচুর। একেবারে পয়লা থেকেই খেলা হয়েছে অনেক। স্থানীয় বিলাসী সিনেমা হলের সামনে একরামের চলন্ত গাড়ির ওপর প্রকাশ্য দিবালোকে গুলিবর্ষণ করা হয় প্র্রথমে, একরাম গুলিতে নিহত হয়, তারপর গ্যাস সিলিনডারে আগুন ধরিয়ে দিয়ে মৃত্যুটিকে সিলিনডার বিস্ফোরণজনিত মৃত্যু হিসেবে ধামাচাপা দেবার চেষ্টা করা হয়, তারপর বিএনপির মিনার আর মিসটারকে হত্যাকাণ্ডের আসামী হিসেবে ফাঁসিয়ে দেয়া হয়। বিচারিক কার্যক্রমে মিনার আর মিসটার নির্দোষ প্রমাণিত হয়, বেকসুর খালাস পায়। আর কিছু লিখা সমীচিন নয়। মানবজমিনের সচেতন বোদ্ধা পাঠক পাঠিকামাত্রেই বোঝেন ঘটমান বর্তমানের হাল হকিকত। মানবজমিন যে, এরপরও এই রিপোর্টটি প্রকাশ করেছে, সাধুবাদ দিতে হয় তাদেরকে। একরাম কোন সাধারণ ছেলে ছিলো না। অসাধারণ মেধা, বুদ্ধিমত্তা, দূরদর্শিতাসম্পন্ন প্রতিভাবান ছেলে ছিল সে। দোষ তার ছিল একটিই। সে আউয়ামি লুটপাট সিনডিকেট লিক করতো, যেখানে তার প্রখর ব্রেনের খেলার সাথে এঁটে উঠতে না পেরে সিনডিকেটের তার নিজেরই দলীয় লোকজনই তাকে চিরতরে সরিয়ে দেয় ধরাধাম থেকে পৈশাচিক নির্মমতায়। আউয়ামি লিকে এমনই চরিত্রের লোকজনের সমাবেশ। আউয়ামি লিকের মরণের জন্যে বাইরের কোন শক্তির প্রয়োজন নেই। আউয়ামি লিকই আউয়ামি লিকের শত্রু। আউয়ামি লিকের মরণের জন্যে আউয়ামি লিকই কাফী!

আপনার মতামত দিন

বাংলারজমিন অন্যান্য খবর

সিলেটে ঈদে করোনা রোগীদের ফল পাঠালেন সেলিনা মোমেন

২৫ মে ২০২০

পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন সিলেটের করোনা আইসোলেশন সেন্টার শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের ...

কিশোরগঞ্জে ঈদের দিনে নিরন্ন ৬ পরিবারে খাবার পৌঁছে দিলেন এডিসি মাসউদ

২৫ মে ২০২০

মোবাইল ফোনে এসএমএস পেয়ে ঈদের দিনে নিরন্ন ৬টি পরিবারে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত ...

ময়মনসিংহে ২৪ ঘণ্টায় দুই খুন

২৫ মে ২০২০

ময়মনসিংহের ফুলপুুর ও তারাকান্দায় উপজেলায় ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে ২ জন  খুন হয়েছে। জানা গেছে, গত ...

মোটরসাইকেলে ঘুরতে গিয়ে প্রাণ হারাল দুই বন্ধু

২৫ মে ২০২০

ঈদের দিনে মোটরসাইকেলে করে ঘুরতে গিয়ে প্রাণ হারাল অনিক (১৬) ও রিয়াদ (১৮)নামে দুই বন্ধু। ...

তারাকান্দায় দুই পরিবারের সংঘর্ষে কলেজছাত্র নিহত

২৫ মে ২০২০

ময়মনসিংহের তারাকান্দায় উপজেলার কালিখায় গ্রামে সরকার গোষ্ঠী ও খান গোষ্ঠীর মাঝে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে ...

বাসাইলে আবারো পাগলা কুকুরের তান্ডব, আহত ১৯

২৪ মে ২০২০

টাঙ্গাইলের বাসাইলে আবারো পাগলা কুকুরের তান্ডবে শিশুসহ ১৯ জন আহত হয়েছেন। শনিবার (২৪ মে) সকাল ...

কুমিল্লায় ঈদ সামগ্রী বিতরণ করল নুরুল হক ফাউন্ডেশন

২৪ মে ২০২০

কুমিল্লা মহানগরীরর ২৭ টি ওয়ার্ডে আলহাজ্ব নুরুল হক ফাউন্ডেশন ত্রান সহায়তা এবং ঈদ সামগ্রীবিতরন করেছে।



বাংলারজমিন সর্বাধিক পঠিত