আরো ২১ জনের মৃত্যু

আক্রান্তের সংখ্যা ২৫,০০০ ছাড়ালো

স্টাফ রিপোর্টার

প্রথম পাতা ২০ মে ২০২০, বুধবার

দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ছাড়িয়েছে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত আরো ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে ১ হাজার ২৫১ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ পাওয়া যায়। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ হাজার ১২১ জনে।
মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এই তথ্য জানান অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক  (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।  তিনি জানান, ৪২টি ল্যাবের মধ্যে ঢাকার মধ্যে ২১টি ও ঢাকার বাইরে ২১টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৯ হাজার ৯১টি। পরীক্ষা করা হয়েছে ৮ হাজার ৪৪৯টি। পরীক্ষা করা নমুনার মধ্যে ১ হাজার ২৫১ জনের দেহে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়।
এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরো ২১ জনের মৃত্যু হয়। মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৭০ জনে। নাসিমা সুলতানা আরো বলেন, ২৪ ঘণ্টায় ৪০৮ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৪ হাজার ৯৯৩ জন। তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২১ জনের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিভাগে ১৪ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৪ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ১ জন, খুলনা বিভাগে ১ জন ও বরিশাল বিভাগে ১ জন। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ১ জন; ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ২ জন; ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন; ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী ৫ জন; ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫ জন; ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৪ জন ও ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ২ জন মারা গেছেন। বুলেটিনে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে আরো ৩২৬ জনকে এবং বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন তিন হাজার ৬১৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৯৩ জন এবং এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন এক হাজার ৭৯৩ জন। সারা দেশে আইসোলেশন শয্যা আছে ১৩ হাজার ২৮৪টি। গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় আইসোলেশন শয্যা বেড়েছে চার হাজার ১৫০টি। মোট আইসোলেশন শয্যার মধ্যে রাজধানী ঢাকায় সাত হাজার ২৫০টি এবং ঢাকার বাইরে আছে ছয় হাজার ৩৪টি। এসব হাসপাতালে আইসিইউ শয্যা আছে ৩৯৯টি। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে আইসিইউ শয্যা বেড়েছে ৬০টি। ডায়ালাইসিস ইউনিট আছে ১০৪টি। গত ২৪ ঘণ্টায় হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক মিলিয়ে কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে তিন হাজার ৫৩১ জনকে। এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে দুই লাখ ৪৭ হাজার ৪৯১ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড় পেয়েছেন দুই হাজার ৭০২ জন। এ পর্যন্ত মোট ছাড় পেয়েছেন এক লাখ ৯৬ হাজার ২৭৪ জন। বর্তমানে হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক মিলিয়ে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ৫১ হাজার ২১৭ জন। দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা পর্যায়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য ৬২৭টি প্রতিষ্ঠান প্রস্তুত রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে সেবা দেয়া যাবে ৩১ হাজার ৮৪০ জনকে।
প্রসঙ্গত, গত ৮ই মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় বলে জানায় সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। শুরুর দিকে রোগীর সংখ্যা কম থাকলেও এখন সংক্রমণ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার বলছে, বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩ লাখ ২০ হাজার ৩৬৭ জন। এ ছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯ লাখ ৫ হাজার ৪৭১ জন । অন্যদিকে সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ১৬ হাজার ২৮১ জন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০২০-০৫-২২ ০৩:১৩:১৭

If Bangladesh can conduct test rapidly, the number of patients will be 10 times more by now. In remote areas the virus is already spreaded.

আপনার মতামত দিন

প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

ঈদ শুভেচ্ছা

২৩ মে ২০২০

ছুটির নোটিশ

২৩ মে ২০২০

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ২৩ থেকে ২৭শে মে দৈনিক মানবজমিন অফিস বন্ধ থাকবে। ২৪ থেকে ...



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত