বাংলাদেশে ধর্মীয় বৈষম্যের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান মার্কিন সিনেটরের

মানবজমিন ডেস্ক

শেষের পাতা ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:১৪

বাংলাদেশে ধর্মীয় বৈষম্যের শিকার মানুষদের সাহায্য করতে ট্রাম্প প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রভাবশালী রিপাবলিকান মার্কিন সিনেটর চাক গ্রাসলি। সোমবার ফক্স নিউজে প্রকাশিত এক মতামত কলামে এ আহ্বান জানান তিনি। এতে বিশ্বজুড়ে ধর্মীয় বৈষম্যতা রুখতে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা জোরদার করা প্রয়োজন বলে জানান এই সিনেটর। বলেন, ধর্মীয় বৈষম্যতার কারণে বিশ্বজুড়ে নানা সংস্কৃতি ও সমাজে নির্দোষদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে আছে।

গ্রাসলি লিখেন, বিশ্বজুড়ে হামলার শিকার হচ্ছে ধর্মীয় স্বাধীনতা। এতে ঝুঁকির মধ্যে পড়ছে নির্দোষদের প্রাণ। বিশ্বজুড়ে এসব নিপীড়ন ও সহিংসতা বন্ধের শুরু যুক্তরাষ্ট্র থেকেই হওয়া উচিত। তিনি বলেন, আপনারা দেখছেন ইহুদি  উপাসনালয়গুলোয় কী হচ্ছে।
আমার ধারণা, আমাদের এখানে কিছু মুসলিম-বিরোধী ও কিছু খ্রিস্টান-বিরোধী মনোভাব আছে। এসব পার হয়ে আসতে হবে।

তিনি রাশিয়া, বাংলাদেশ ও সুদানের মতো দেশগুলোয় কর্তৃত্ববাদী শাসনের অধীনে বাসরত মানুষ, যারা ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে নিপীড়িত হচ্ছেন, তাদের সাহায্যের আহ্বান জানিয়েছেন। বলেছেন, জাতিসংঘের বিভিন্ন প্রস্তাবনা ও যুক্তরাষ্ট্রের চেষ্টায় বাকি বিশ্বের জন্য একটি নৈতিক মানদণ্ড ঠিক করে দিতে হবে। যেখানে ধর্মীয় স্বাধীনতা নেই, সেখানে তা বাড়ানোর দাবি করাটাই আমাদের লক্ষ্য।

গ্রাসলি লিখেন, চীন, উত্তর কোরিয়া ও পাকিস্তানের মতো দেশগুলোর নাগরিকদের নির্ভয়ে নিজের পছন্দের ধর্ম পালনের সুযোগ করে দিতে যুক্তরাষ্ট্রকে বাণিজ্য চুক্তির আশ্রয় নেয়া উচিত।এজন্য প্রস্তাবিত ও ভবিষ্যৎ চুক্তিগুলো ব্যবহার করে চাপ প্রয়োগের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। বলেন, যুক্তরাষ্ট্র কর্মক্ষেত্র ও পরিবেশ উন্নয়নের জন্য এসব চুক্তি আলোচনা ব্যবহার করেছে, তাহলে ধর্মীয় স্বাধীনতার জন্য কেন নয়? এ প্রসঙ্গে রিপাবলিকান সিনেটর বলেন, আমরা ইউএসএমসিএ ও বের হওয়ার আগ পর্যন্ত ট্রান্স-প্যাসিফিক পার্টনারশিপ নিয়ে যা করছিলাম ঠিক তেমনটাই করা যায়।

বিভিন্ন দেশে প্রচলিত ধর্ম অবমাননা আইনকে ধর্মীয় স্বাধীনতা ও এ সংক্রান্ত মানবাধিকার লঙ্ঘনের মাধ্যম হয়ে ওঠেছে বলে কলামে মন্তব্য করেন গ্রাসলি। যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক কমিশনকে উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, এসব আইন অন্যায্যভাবে সরকারকে সত্য ও ধর্মীয় ন্যায়পরায়ণতার বিচারক বানিয়ে দেয়।

আপনার মতামত দিন



শেষের পাতা অন্যান্য খবর

বড় সংকটে শ্রমবাজার

২৭ মার্চ ২০২০

করোনা ভাইরাস নিয়ে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

দক্ষিণ এশিয়ায় বাড়ছে সংক্রমণ

২৭ মার্চ ২০২০

আতঙ্কের জনপদ নিউ ইয়র্ক

আরো চার বাংলাদেশির মৃত্যু

২৬ মার্চ ২০২০



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত