খাবার দিতে দেরি, ভেঙে গেল শাবনুরের বিয়ে

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

এক্সক্লুসিভ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার

খাবার দিতে দেরি হওয়ায় কথা কাটাকাটির পর ঘটলো মারামারি। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও রক্ষা করতে পারেনি বিয়ে। এমন ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রামের আনোয়ারায়। শনিবার বিকালে অনুষ্ঠানের শেষ মুহূর্তে উপজেলার সরকার হাট এলাকার আল-আমিন কমিউনিটি সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আনোয়ারা থানার এসআই শামসুজ্জামান বলেন, বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে মারামারির খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। দু’পক্ষকে শান্ত করি। কিন্তু বরপক্ষের আচরণে কনেপক্ষ মেয়ে দিতে রাজি হয়নি। তাই বরপক্ষ বিয়ে না পড়ে চলে যায়।
এ বিষয়ে ১৮ই ফেব্রুয়ারি দু’পক্ষকে থানায় আসতে বলেছি। পুলিশ জানায়, আনোয়ারা উপজেলার মহতর পাড়া গ্রামের শরীফ মেম্বারের বাড়ির রবিউল হোসেনের ছেলে মো. রুবেলের সঙ্গে বাঁশখালী বেলগাঁও গ্রামের হারুনের বাড়ি আব্দুল মোতালবের মেয়ে শাবনুর আকতারের বিয়ে ঠিক হয়। বিয়ের অনুষ্ঠান চলার একপর্যায়ে বর আসে। বর আসার পর বরকে এবং বরের মাকে খাবার দিতে দেরি হওয়ায় বরের ভাই সোহেল ক্ষিপ্ত হয়ে মারামারি শুরু করে। এক পর্যায়ে কমিউনিটি সেন্টার কর্তৃপক্ষ মারামারি থামানোর চেষ্টা করেও না পারায় পুলিশকে ফোন দেয়। পরে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেই। এ বিষয়ে শাবনুরের মামা গুরা মিয়া বলেন, খাওয়ার জন্য মানুষ এরকম করে, আর দেখি নাই। বর আসার পর ভাত দিতে দেরী হওয়ায় তার ভাই লঙ্কা কাণ্ড করে ফেলছে। আমাদের কয়েকজনকে মেরে আহত করেছে। তারপরও আমরা শান্ত থেকেছি। কিন্তু বরের ভাই, বাবাসহ কেউ শান্ত না হওয়ায় পুলিশ এসে দু’পক্ষকে সমঝোতায় আনতে চেয়েছিল। তবে তাদের আচরণ দেখে আমরা মেয়েকে তুলে দিইনি। প্রায় ৫ লক্ষ টাকা খরচ করছি। ৫০ হাজার টাকার ফার্নিচার আগে বরের বাড়িতে পৌঁছিয়ে দিয়েছি। ঘটনার ব্যাপারে বরের ভাই সোহেল বলেন, আমার ভাই আসার ২ ঘণ্টা পরও ভাত দিচ্ছে না, তাই একটু কথা কাটাকাটি হয়েছে। এজন্য নাকি ওরা মেয়ে দিবে না। মেয়ের পক্ষ হয়ে এত অহংকার কিসের, তাই আমরাও আনি নাই। মারামারির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Joseph

২০২০-০২-১৭ ০৭:৫৯:০৩

মেয়ে পক্ষ অহংকার দেখাবে না কেন? মেয়ে বলে?

Md. Rafique-Uz-Zaman

২০২০-০২-১৭ ১৩:০৪:৪০

Omar Faroque Bhai, Apna k o nek o nek Thanks . shodik comments er jonno.

Md.Kanchol Molla

২০২০-০২-১৭ ০৯:১৭:৩৭

Dustbiner Man

ওমর ফারুক

২০২০-০২-১৬ ১৮:৪৪:৫৬

বরপক্ষ প্রকৃত সন্ত্রাসী ও বেয়াদপ। মেয়েকে সমর্পন(বিয়ে) না করে সঠিক কাজ করেছে মেয়ে পক্ষ। বরের বাড়িতে যে ফার্নিচার পাঠানো হয়েছে তা ও বোধহয় আত্বসাৎ করেছে বরের বাবা, ভাই। এমন নিকৃষ্ঠ পরিবারের ছেলের কাছে কন্যাদান মানে মেয়ের ভবিষ্যৎ শেষ করা।

আপনার মতামত দিন



এক্সক্লুসিভ অন্যান্য খবর

চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য হোটেল-গেস্ট হাউজে থাকার ব্যবস্থা

২৭ মার্চ ২০২০

করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় যে চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা মানুষের সেবা করে চলেছেন, তাদের হাসপাতালের নিকটবর্তী ...

সরজমিন সিলেট

যেভাবে বদলে গেল নগরের দৃশ্যপট

২৭ মার্চ ২০২০

ব্যতিক্রমী মমতা

২৭ মার্চ ২০২০

ভারতে করোনা আক্রান্ত বেড়ে ৬৪৯ মৃত্যু ১৩

২৭ মার্চ ২০২০

ভারতজুড়ে চলছে ২১ দিনের লকডাউন। এরই মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত হারে বেড়ে চলেছে। বৃহস্পতিবার ...



এক্সক্লুসিভ সর্বাধিক পঠিত