খাবার দিতে দেরি ভেঙে গেল শাবনুরের বিয়ে

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

অনলাইন ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, রোববার, ৫:১৬

খাবার দিতে দেরি হওয়ায় কথা কাটাকাটির পর ঘটলো মারামারি। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও রক্ষা করতে পারেনি বিয়ে। এমন ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রামের আনোয়ারায়। শনিবার বিকেলে অনুষ্ঠানের শেষ মুহূর্তে উপজেলার সরকার হাট এলাকার আল-আমিন কমিউনিটি সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আনোয়ারা থানার এসআই শামসুজ্জামান বলেন, বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মারামারির খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। দু’পক্ষকে শান্ত করি। কিন্তু বরপক্ষের আচরণে কনেপক্ষ মেয়ে দিতে রাজি হয়নি। তাই বরপক্ষ বিয়ে না পড়ে চলে যায়।
এ বিষয়ে ১৮ই ফেব্রুয়ারি দু’পক্ষকে থানায় আসতে বলেছি। পুলিশ জানায়, আনোয়ারা উপজেলার মহতর পাড়া গ্রামের শরীফ মেম্বারের বাড়ির রবিউল হোসেনের ছেলে মো. রুবেলের সঙ্গে বাঁশখালী বেলগাঁও গ্রামের হারুনের বাড়ি আব্দুল মোতালবের মেয়ে শাবনুর আকতারের বিয়ে ঠিক হয়। বিয়ের অনুষ্ঠান চলার একপর্যায়ে বর আসে। বর আসার পর বরকে এবং বরের মাকে খাবার দিতে দেরি হওয়ায় বরের ভাই সোহেল ক্ষিপ্ত হয়ে মারামারি শুরু করে। এক পর্যায়ে কমিউনিটি সেন্টার কর্তৃপক্ষ মারামারি থামানোর চেষ্টা করেও না পারায় পুলিশকে ফোন দেয়। পরে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেই।

এ বিষয়ে শাবনুরের মামা গুরা মিয়া বলেন, খাওয়ার জন্য মানুষ এরকম করে, আর দেখি নাই। বর আসার পর ভাত দিতে দেরী হওয়ায় তার ভাই লঙ্কা কাণ্ড করে ফেলছে। আমাদের কয়েকজনকে মেরে আহত করেছে। তারপরও আমরা শান্ত থেকেছি। কিন্তু বরের ভাই, বাবাসহ কেউ শান্ত না হওয়ায় পুলিশ এসে দু’পক্ষকে সমঝোতায় আনতে চেয়েছিল। তবে তাদের আচরণ দেখে আমরা মেয়েকে তুলে দিইনি। প্রায় ৫ লক্ষ টাকা খরচ করছি। ৫০ হাজার টাকার ফার্নিচার আগে বরের বাড়িতে পৌঁছিয়ে দিয়েছি। ঘটনার ব্যাপারে বরের ভাই সোহেল বলেন, আমার ভাই আসার ২ ঘণ্টা পরও ভাত দিচ্ছে না, তাই একটু কথা কাটাকাটি হয়েছে। এজন্য নাকি ওরা মেয়ে দিবে না। মেয়ের পক্ষ হয়ে এত অহংকার কিসের, তাই আমরাও আনি নাই। মারামারির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মো: ফোরকান উদ্দিন

২০২০-০২-১৭ ০৫:৫৮:৩৪

বরের ভাই সোহেল বলেন,"মেয়ের পক্ষ হয়ে এত অহংকার কিসের, তাই আমরাও আনি নাই।" আমি বলতে চাই, মেয়ে কি নদীতে ভেসে আসে যে মেয়ের কোন দাম থাকবে না,তার পরিবার কোন প্রতিবাদ করতে পারবে না?

মোহাম্মদ ইমরান

২০২০-০২-১৬ ১০:৪২:১৬

মেয়ের বাবার একটি সাহসী সিদ্ধান্ত। আমার মতে মেয়ের বাবার একটা মানহানির মামলা করা উচিত। তবে এখন কিছু আবাল একতরফা ভাবে চট্টগ্রামের প্রতি ঘৃনা চড়াচ্ছে। এখানে যৌতুকের কথা আসেনি শো বুঝে শুনে মন্তব্যকরা উচিত, উস্কানীমূলক মন্তব্য না করে।

শওকত আলী

২০২০-০২-১৬ ২১:৩৮:১৮

যৌতুক প্রথা এ সমাজের সকলের জন্য অভিশাপ হয়ে গেছে। বিশেষ করে চট্টগ্রামে এই যৌতুক প্রথাটা খুবই বেশি। একই উপজেলায় এক বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে বরপক্ষ ভাতের সাথে চিংড়ী মাছ না দেওয়াতে কনে না নিয়ে চলে গেছে। আর এই বিয়েতে ভাত দিতে দেরি হওয়ায় বিয়ে ভেঙ্গে গেছে। খুবই হতাশাজনক ও বেদনাদায়ক। আমাদের দেশটি বিগত ১৯৯১সাল থেকে নারী প্রধানমন্ত্রী ও নারী বিরোধীদলীয় নেত্রী দায়িত্ব পালন করে আসছে। অথচ সে সমাজে যৌতুকের জন্য অনেক নারীর জীবন অকালে শেষ হয়ে যাচ্ছে। গোটা সমাজ এই অভিশাপ থেকে কিভাবে বাঁচবে তার একটি বিহিত ব্যবস্থা করা জরুরী। তাই সারাদেশে বিয়ের ক্লাবসহ সব হল/বার বন্ধ করে দেয়া উচিত। বিয়ের সময় যৌতুক দেওয়া-নেওয়াকে অবৈধ ঘোষণাসহ আইন-শৃংখলা বাহিনী দিয়ে(ম্যাজিস্ট্রেটসহ) নজরদারী/তল্লাশী চালিয়ে কঠোর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

mdnurul islam

২০২০-০২-১৬ ২১:২৯:৫১

Arokom obodro Lukar sata Atiota Na Koratai valo Ata Amar Mot

মাহবুব

২০২০-০২-১৬ ০৭:৫৫:২৪

আদীম/অসভ্য যুগের মানুষের মত আচরনের জন্যে ছেলের বড়ভাই, বাবাকেও বেঁধে মাথার চুল সম্পূর্ণ ফেলে দেয়া উচিত ছিল ।

Khaza Shahin

২০২০-০২-১৬ ২০:৩৮:১১

মেয়েটি দেবরের ভবিষ্যত অত্যাচার থেকে বেচে গেছে।

Sharif

২০২০-০২-১৬ ০৬:৩৬:১২

হিম্মৎওয়ালা পিতা। সাবাস।

নূরুল ইসলাম

২০২০-০২-১৬ ১৮:২৮:০৩

কনের মাথায় ডিম ভাংগার চেয়ে একটু উননত। চাটগাইয়া বলে কথা।

Md. Saiful Islam

২০২০-০২-১৬ ১৮:২৮:০১

Shala ke dekhe mone hoi ekta gunda.Porer ta kheye manush. Thik hoice.

Saidur Rahman

২০২০-০২-১৬ ১৮:২০:২৪

শাবনুর বেঁচে গেল।

নাজমুল হুদা

২০২০-০২-১৬ ১৮:১৯:৩৭

চট্টগ্রামে বরযাত্রীর নামে মেয়ের পরিবারে উপর যে জুলুম করা হয়, সেটা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। প্রত্যেক গরিব পরিবারের মেয়ে বিয়ে দেয়ার সময় ভিক্ষা করতে হয়। বিশ্বাস হচ্ছে না? খবর নিয়ে দেখুন, ঐ গ্রামের যে সকল প্রবাসী আছে, তাদের কাছে হাত পাততে হয়, যারা ভালো চাকুরী করে তাদের কাছে হাত পাততে হয়। ভিক্ষা করে হলেও বর পক্ষের পাঁচশ থেকে হাজার লোককে খাওয়াতে হবে। যেন মনে হয় চট্টগ্রামের মানুষ কোনোদিন কিছু খায় না। শুধুই বিয়ের দাওয়াতের অপেক্ষায় থাকে। তাই চট্টগ্রামের মানুষকে আমি ছোটোলোক আখ্যা দিয়েছি।

তালুকদার লিটন

২০২০-০২-১৬ ১৮:১৯:৩৩

এমন নোংরা মানসিকতার পরিবারের কাছে কোন মেয়ে নিরাপদ নয়। বাবা হিসেবে মোতালেব সাহেব সঠিক সিন্দান্ত নিয়েছেন ।আমি মেয়ের বাবাকে দুই কোটি টাকার ক্ষতি পুরন মামলা করার পরামর্শ দিচ্ছি ।

Nurun Nabi

২০২০-০২-১৬ ১৮:০২:০৫

I think in this situation need to give full support to Shabnor's Family.

Abdullah Al Mamun

২০২০-০২-১৬ ০৪:৫৪:৪২

এমন নোংরা মানসিকতার পরিবারের কাছে কোন মেয়ে নিরাপদ নয়। বাবা হিসেবে মোতালেব সাহেব সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ধন্যবাদ!

এ, এইচ মাসুদ

২০২০-০২-১৬ ১৭:৫২:১১

এত মেজাজ দেখানো পরিবারে বিয়ে না দেওয়াই ভাল।

Sultan

২০২০-০২-১৬ ০৪:২৫:৫৬

শাবনূরকে ঔদে, হাতে তুলে না দিয়ে মেয়ের বাবা ভাল কাজটিই করেছে। বর পক্ষ অত্যন্ত লোভী বলেই মনে হল। এই লোভী পরিবারে সাবনুর কত টুকু নিরাপদে থাকথে পারবে এটাই একটা চিন্তার বিষয়। থাই মেয়ের বাবাকে আরও বেশি সাবধান হতে হব। আমি আমার মতামত ব্যক্ত করলাম শুধু বাকি সবই মহান আল্লাহ্ ভাল জানেন।

আপনার মতামত দিন



অনলাইন অন্যান্য খবর

মধ্যে রাতে ফার্মেসীতে ডাকাতি

ভিডিও ফুটেজ ঘিরে তদন্ত

৩ এপ্রিল ২০২০

সাঈদীর মুক্তি চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস, ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

৩ এপ্রিল ২০২০

জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা ও যুদ্ধাপরাধী মামলায় আমৃত্যু সাজাপ্রাপ্ত আসামি মাওলানা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর মুক্তি চেয়ে ...

শ্রীমঙ্গলে একদিনে ৪২ মামলা, জরিমানা ২৭ হাজার ৭০০ টাকা

৩ এপ্রিল ২০২০

শ্রীমঙ্গল উপজেলায আজ শুক্রবার সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষে দিনব্যাপী কঠোর অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। ...

মাধবপুরে প্রবাসীকে পিটিয়ে হত্যা

৩ এপ্রিল ২০২০

হবিগঞ্জের মাধবপুরে প্রবাসীর কাছ থেকে টাকা নিতে তাকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় ...

সিলেটের মেয়রের আহবানে সাড়া দিলেন স্ত্রী শ্যামা হক

৩ এপ্রিল ২০২০

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর অনুরোধে সাড়া দিয়েছেন শ্যামা হক চৌধুরী। মেয়রের অনুরোধে ...



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



মধ্যে রাতে ফার্মেসীতে ডাকাতি

ভিডিও ফুটেজ ঘিরে তদন্ত