ইসিতেই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই

স্টাফ রিপোর্টার

প্রথম পাতা ২৭ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৩৬

নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরেই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই বলে মন্তব্য করেছেন জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। গতকাল নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ অভিযোগ করেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন সভায় আমার প্রস্তাব বা সুপারিশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে অগৃহীত হয়। আমাকে সংখ্যালগিষ্ঠ হিসেবে না দেখে আমার বক্তব্যের বিষয়বস্তুর মেরিটকে বিবেচনায় নেয়া সমীচীন বলে মনে করি। আমার ধারণা কমিশন সভায় আমার বক্তব্য প্রদানের স্থান সংকুচিত হয়ে পড়েছে। নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরেই কোনো লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই। তিনি বলেন, এই নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের যেভাবে দায়িত্ব পালন করা প্রয়োজন তা হচ্ছে না। উক্ত নির্বাচনের সিডিউল ঘোষণার পর থেকে আজ পর্যন্ত যে ৩টি কমিশন সভা অনুষ্ঠিত হয়, তার কোনটিতে ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের আচরণবিধি, অনিয়ম বা প্রার্থীদের অভিযোগ সম্পর্কে কোনো আলোচনা হয়নি।
এবং কোনো কমিশন সভায় এসব বিষয় এজেন্ডাভূক্ত হয়নি।  মাহবুব তালুকদার বলেন, আগামী ২৮শে জানুয়ারি ২০২০ তারিখে যে নির্বাচন কমিশন সভা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, তাতেও ঢাকা সিটি করপোরেশন সম্পর্কে কোনো বিষয়ে এজেন্ডাভূক্ত নয়। অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে, ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পর্কে আমি বিগত ৯, ১৩, ১৬ ও ২০ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে যে ৪টি ইউ,ও নোট প্রদান করেছি, তা রীতিমত উপেক্ষা করা হয়েছে এবং আমলে নেয়া হয়নি। এসবের বিষয়বস্তুু সম্পর্কে কোনো আলোচনা হয়নি বা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও গৃহীত হয়নি। যদি আমার বক্তব্য অগ্রহণযোগ্য হয়, তাহলেও আমাকে তা জানানো উচিত ছিল। তিনি আরও বলেন, বিগত ১৬ই জানুয়ারি প্রদত্ত ইউ,ও নোটের মাধ্যমে কমিশন সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ও ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের দুই রিটার্নিং অফিসারের কাছে আমি প্রার্থীদের বিভিন্ন অভিযোগ সম্পর্কে তথ্যাদি জানাতে বলেছিলাম। এসব অভিযোগের বিষয়ে কি ব্যাবস্থা   গ্রহণ করা হয়েছে ২০শে জানুয়রি ২০২০ তারিখের মধ্যে আমার কাছে পেশ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলাম। কিন্তু আমার সেই নির্দেশ উপেক্ষিত হয়েছে। এবং কোনো তথ্যই আমাকে সরবরাহ করা হয়নি। নির্বাচন কমিশনে রাজনৈতিক দল বা প্রার্থীর পক্ষ থেকে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পর্কে যে সব অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বা অভিযোগ পত্র প্রেরিত হয়েছে, তা নিয়ে কমিশনে কোনো প্রকার আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। এসব অভিযোগের পেছনে যে অসন্তোষ আছে, তা বিস্ফোরিত হলে সিটি করপোরেশন নির্বাচন যথোপযুক্তভাবে অনুষ্ঠিত হবে না, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এর দায় ভার নির্বাচন কমিশনকে বহন করতে হবে। আমরা নির্বাচন কমিশনের স্বাধীনতা ও মর্যাদা রক্ষা করতে চাই। আমাদের কর্মকান্ডে তা দৃশ্যমান হওয়া বাঞ্ছনীয়। সরকারি দল সবসময় একটা কথা বলে আপনি বিএনপির পারপাস সার্ভ করার জন্য বসেছেন, আপনার পদত্যাগ করা উচিত এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যে কেউ যেকোন কিছু বলতে পারে, যে কোন তকমা আমার পেছনে লাগানো যেতে পারে, কিন্তু আমার অতীত ইতিহাস যারা জানেন তারা কখনও বলবেন না যে আমি কোন নির্দিষ্ট দলের। যে মূহুর্ত থেকে আমি এই চেয়ারে বসেছি সেই মূহুর্ত থেকে আমি কোন দলের নই। কোন দলের সঙ্গে আমার কোন সম্পর্ক নেই। কারো সঙ্গে কোন মতবাদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক নেই। আমি আমার বিবেক দ্বারা পরিচালিত। এটা তাদের রাজনৈতিক বিষয় হতে পারে। কিন্তু আমি সেগুলো অতিক্রম করে যেতে চাই। তিনি বলেন, আমি আচরণবিধি সম্পর্কে যে চারটি নোট দিয়েছিলাম সেগুলো উপেক্ষিত হয়েছে। কিন্তু এ সম্পর্কে আমার করণীয় সেটা সময়ই বলে দেবে, এ মূহুর্তে কিছু বলতে পারব না। বর্তমানে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, নির্বাচন যখন হবে তখন দেখবেন আইনশৃঙ্খলা আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে কিনা। তবে রাজনৈতিক বিষয়ে মন্তব্য দেয়া আমার পক্ষে সম্ভব না। প্রচার প্রচারনায় আচরনবিধি লঙ্ঘন হচ্ছে আপনারা চুপ কেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি তো চুপ না। আমি স্পষ্টভাবে আচরণবিধি সম্পর্কে আমার অভিমত বলেছি। সুতরাং এই প্রশ্নের আলাদা জবাব হয় না। আমার চোখের সামনে কেবল ঢাকাবাসী নয়, আমি এ দেশের নীরব জনগোষ্ঠির ভাষা যেটা অশ্রুত, সেই অশ্রুত ভাষা শোনার জন্য আমি চেস্টা করি, তাদের কি ভাষ্য। নিজেদের (কমিশন) মধ্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড না থাকলে ভোটের মাঠে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড কিভাবে থাকবে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা তো এক মেশিনে তৈরি না। আমাদের পাঁচজনের পাঁচ রকম মত হতেই পারে। অনেক বিষয় রয়েছে পারষ্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে একটা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। সেটাই স্বাভাবিক। কোন কোন বিষয়ে ভিন্নমত থাকে। সেটা কারো উপর চাপিয়ে দিতে পারি না। গণতান্ত্রিক দেশে ভিন্নমত থাকতেই পারে। কমিশনের সাধারণত সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্ততেই সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। সেখানে সংখ্যালঘিষ্ঠ হিসাবে আমার প্রস্তাব হয়ত গৃহিত হয় না।

আপনার মতামত দিন



প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

করোনায় মৃত্যু ২০০০ ছাড়ালো

সিঙ্গাপুরে আক্রান্ত বাংলাদেশি সংকটাপন্ন

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

করোনা নিয়ে গুজব ছড়াচ্ছে কারা?

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

৩০ টাকার মাস্ক ১২০

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ফাইলবন্দি সুপারিশ

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ঢাকা সিটি নির্বাচন

রিটার্নিং কর্মকর্তার গেজেট প্রকাশ নিয়ে বিতর্ক

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

মালয়েশিয়ায় শ্রমবাজার উন্মুক্তকরণ

জেডব্লিউজি’র বৈঠক হচ্ছে মন্ত্রীর সফর অনিশ্চিত

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

রাজনৈতিক বাহাস

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী

মোদি আসছেন, ঢাকা ঘুরে গেল অগ্রবর্তী দল

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত



ডাক সঞ্চয়ের মুনাফা কমায় ক্ষোভ, জীবন যাত্রার ব্যয় বাড়ায় ত্রাহি অবস্থা

মধ্যবিত্তের সঞ্চয়ে হাত

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী

মোদি আসছেন, ঢাকা ঘুরে গেল অগ্রবর্তী দল