বন্দরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার সংবাদ সম্মেলন

‘এসপি হারুন ৫ কোটি টাকা চেয়েছিলেন’

বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

শেষের পাতা ২১ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৫৭

নাসিক ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান অভিযোগ করেছেন, নারায়ণগঞ্জের সদ্য প্রত্যাহারকৃত পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ ৫ কোটি টাকা চেয়েছিলেন। চাহিদামতো টাকা না দেয়ায় সাজানো ও মিথ্যা মাদকের মামলায় আমাকে ফাঁসিয়েছেন। তিনি বলেন, এসপি হারুনের কার্যকালে নারায়ণগঞ্জে মিথ্যা মামলার হিড়িক পড়েছিল। গতকাল বুধবার বিকালে বন্দর কবরস্থান রোডের নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক  লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান। মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. আনোয়ার হোসেন সম্পর্কে কোনরকম নেতিবাচক মন্তব্য করেননি জানিয়ে তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের আদর্শে আমরা রাজনীতি করি। ওসমান পরিবার বলয়ের রাজনীতি করার কারণে নাসিক ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ও আমিসহ ক্ষমতাসীন দলের অনেক নেতাকর্মী এসপি হারুনের ব্যক্তিগত প্রতিহিংসার শিকার হয়ে মিথ্যা মামলার আসামি হয়ে জেল খেটেছেন। সাংবাদিকদের সহায়তা কামনা করে তিনি আরো বলেন, তৃণমূল নেতা-কর্মীদের রক্ষা করতে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের অভিভাবক হিসেবে শামীম ওসমানের হস্তক্ষেপ জরুরি।




পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মুন্না মজুমদার

২০১৯-১১-২১ ০১:১৫:৩৮

এসপি'র নাম ভাঙিয়ে যারা চাঁদাবাজির স্বীকার হয়েছে আমি তাদের মধ্যে অন্যতম।আমার নিকট কোন ধরনের মাদক না থাকা সত্বেও চাহিদা মতো টাকা না দেয়ায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এক এস,আই আমাকে মাদক দিয়ে ফাঁসিয়ে জেলে পাঠায়।মান সম্মানের কথা ভেবে এবং পরিস্থিতি বিবেচনা করে চুপ থাকতে বাধ্য হই।

FAKHRUL ISLAM NIPU

২০১৯-১১-২১ ০৯:২৪:৫০

Need to investigate first against Saifuddin Ahmed Dulal Prodhan.

আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা -এর সর্বাধিক পঠিত



কড়া নিরাপত্তা, এজলাসে সিসি ক্যামেরা

খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি কাল