এবার অন্যরকম অভিজ্ঞতায় ঝিলিক

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৭ নভেম্বর ২০১৯, রোববার
চ্যানেল আই-সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর নিয়মিত গান করে যাচ্ছেন ঝিলিক। এরইমধ্যে তার গাওয়া বেশকিছু গানই প্রশংসিত হয়েছে। বর্তমানে শো এবং নতুন গানে সরব তিনি। এর বাইরে টিভি অনুষ্ঠান করছেন নিয়মিত। সাম্প্রতিক সময়ে অন্যরকম এক অভিজ্ঞতা অর্জন করলেন এ শিল্পী। টিভি অনুষ্ঠান করতে গিয়ে কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী সৈয়দ আবদুল হাদী, ফেরদৌসী রহমান ও বরেণ্য গীতিকবি মোহাম্মদ রফিকউজ্জামানের সামনে গান পরিবেশনের সুযোগ পেয়েছেন তিনি। বাংলাভিশনের ‘গানে গানে দেশে দেশে’ অনুষ্ঠানে সৈয়দ আবদুল হাদীর সামনে গান পরিবেশন করেন ঝিলিক। এখানে তিনি গেয়েছেন গীতা দত্ত ও ইসমত আরার দু’টি গান।
অন্যদিকে বিটিভি’র ‘গান চিরদিন’- শীর্ষক অনুষ্ঠানে ঝিলিক গেয়েছেন ফেরদৌসী রহমান ও মোহাম্মদ রফিকউজ্জামানের সামনে। মোহাম্মদ রফিকউজ্জামানের লেখা ও সত্য সাহার সুরে সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া ‘দুঃখ আমার বাসর রাতের পালঙ্ক’ গানটি গেয়ে শোনান ঝিলিক। দু’টি অনুষ্ঠানই সামনে প্রচার হবে। ঝিলিক বলেন, এটা সত্যিই অন্যরকম অভিজ্ঞতা। বাংলাভিশন ও বিটিভি’র দু’টি অনুষ্ঠানেরই শুটিং হয়েছে কাছাকাছি সময়ে। অনুষ্ঠানগুলোতে সৈয়দ আবদুল হাদী স্যার, ফেরদৌসী রহমান ম্যাম ও রফিকউজ্জামান স্যারের সান্নিধ্য পেয়েছি। ভেবেছিলাম গাইতে গিয়ে ভুল হলে বকা দেবেন! কিন্তু না। তারা তিনজনই বরং আমাকে উৎসাহিত করেছেন। কিছু বিষয় শিখিয়ে দিয়েছেন। টিপসও দিয়েছেন। এটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অপহরণের ৫দিন পর মিললো শিশুর লাশ

তামিলদেরও নাগরিকত্ব বিলে আনার আহ্বান

নাগরিকত্ব বিল মুসলিমদের বিরুদ্ধে বৈষম্য

‘সুচির আত্মপক্ষ সর্মথনের সুযোগ আছে বলে মনে হয় না’

কলকাতার বাজারে পদ্মার ইলিশ কিনলে পেঁয়াজ ফ্রি

বৃটিশ নির্বাচনে বাংলাদেশ, পাকিস্তানের মুসলিম প্রার্থীদের রেকর্ড

শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, স্কুল কর্মচারি গ্রেপ্তার

আবেগি চিরকুট লিখে বিষপান, অধ্যক্ষের কক্ষে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো নূপুর

আনোয়ারের কাছেই ক্ষমতা হস্তান্তর করবো: মাহাথির

‘সব মিলিয়ে পছন্দ হলে সামনে জানাবো’

নিউজার্সিতে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৬

সেনা প্রধানসহ মিয়ানমারের ৪ কর্মকর্তার ওপর ফের নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

গণহত্যায় রক্তস্রোত বয়ে গেছে

আইনের শাসন সমুন্নত রাখতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে

জয় বাংলাকে জাতীয় স্লোগান হিসেবে ব্যবহারের মত হাইকোর্টের

নৃশংসতার মুখপাত্র