ইবিতে ফেল হওয়া পরীক্ষার্থী চ্যালেঞ্জ করে হলেন ৮ম

ইবি প্রতিনিধি

শিক্ষাঙ্গন ১৪ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার

 ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় ফেল করায় চ্যালেঞ্জ করেছে এক ভর্তিচ্ছু। এতে যাচাই করা রেজাল্টে সকলকে তাক লাগিয়ে ৮ম স্থান দখল করে নিয়েছে আবু সাইদ নামে ওই ভর্তিচ্ছু। স্বচ্ছতার নামে বিলম্বে রেজাল্ট দিলেও তিন ভর্তিচ্ছু ফেল দেখানোর পরে আবার মেধা তালিকায় স্থান করে নিল। সূত্র মতে, ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ধর্মতত্ত্ব ও ইসলাম শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘এ’ ইউনিটের ফলা প্রকাশ হয় ১২ই নভেম্বর। এর পর মোহাম্মদ আবু সাইদ বিশ্ববিদ্যালয়ের এডমিশন হেল্প ডেস্ক পেজে লিখিত অংশে ফেল করা নিয়ে অভিযোগ তুলে। প্রায় ১৪টি সঠিক হয়েছে দাবি করলেও ১০ মার্ক পাবার নিশ্চয়তা দেয় সে। তার দাবি আমলে নিয়ে খাতা পুনঃমূল্যায়ন করে কর্তৃপক্ষ। পরে কাকতালীয়ভাবে লিখিত অংশে ১০ মার্ক পায় সাইদ।
এতে সম্মিলিত মেধা তালিকায় ফেল থেকে ৮ম স্থানে চলে আসে সে। একই সমস্যা সমাধানে সাঈদসহ ফেল করা আরো দুই ভর্তিচ্ছু মেধা তালিকায় স্থান পেয়েছে। সংশোধনকৃত এসব ফলাফল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ কর হয়। পরবর্তীতে ফলাফল পুর্নমূল্যায়ন করে তিন শিক্ষার্থীর প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী তাদেরকে মেধা তালিকায় রাখা হয়। পাশাপাশি নতুন তালিকা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে ২য় বার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া মোবাইল এসএমএস দিয়ে নতুনভাবে মেধাতালিকায় স্থান প্রাপ্তদের ফলাফল জানানো হয়েছে। এদিকে পরীক্ষা গ্রহণের ৮ দিন পর ফল দিয়েও ভুল এড়াতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ভর্তিচ্ছু ও অভিভাবকরা। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা টেকনিক্যাল উপ কমিটির সদস্য সচিব প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন সাংবাদিকদের বলেন, সংশ্লিষ্ট ইউনিট কতৃক উত্তরপত্র নিরীক্ষণে কিছু ভুল থাকায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। তবে উত্তরপত্র পুর্নমূল্যায়ণ করে বিষয়টি সংশোধন করা হয়েছে। এবিষয়ে ‘এ’ ইউনিট সমন্বয়কারী প্রফেসর ড. লোকমান হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘টেকনিক্যাল সমস্যার কারনে ফলাফলে একটু ত্রুটি হয়েছিলো। বিষয়টি সংশোধন করা হয়েছে।’




আপনার মতামত দিন

শিক্ষাঙ্গন -এর সর্বাধিক পঠিত