নুসরাত হত্যা

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ আসামি কুমিল্লা কারাগারে

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, কুমিল্লা থেকে | ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৪৯
ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ১৬ জনের মধ্যে ১২ জনকে ফেনী কারাগার থেকে মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১২ টার দিকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়েছে। অপর ৪ জনের মধ্যে অন্য একটি মামলায় ২ জনকে বুধবার ফেনী আদালতের কার্যক্রম শেষে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে এবং অপর ২ জনকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হবে। ফেনী জেলা কারাগারে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের জন্য পৃথক কনডেম সেল ও ফাঁসির মঞ্চ না থাকায় তাদেরকে ফেনী কারাগার থেকে কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তরের জন্য কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) অনুমতি দেন। কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্র জানায়, সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ১৬ জনের মধ্যে মঙ্গলবার ১২ জনকে ফেনী কারাগার থেকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়েছে।

তারা হচ্ছে- নূর উদ্দিন, কাউন্সিলর মাকসুদ আলম, শাহাদাত হোসেন, মোহাম্মদ শামীম, হাফেজ আবদুল কাদের, আবদুর রহিম শরীফ, আবছার উদ্দিন, সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের, জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ, ইমরান হোসেন ওরফে মামুন, মহিউদ্দিন শাকিল, ইফতেখার উদ্দিন রানা। ফেনী জেলা কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মোহাম্মদ রফিকুল কাদের জানান, মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ১৬ জনের মধ্যে ১৪ জনকে কুমিল্লা ও দুই নারীকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তরের জন্য কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম মোস্তফা কামাল পাশা নির্দেশ দিয়েছেন। এদের মধ্যে মঙ্গলবার ১২ জনকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে।
অপর ৪ জনের মধ্যে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ এসএম সিরাজ-উদ দৌলা ও রুহুল আমীন বুধবার (১৩ই নভেম্বর)  ফেনী আদালতে মামলার দিন ধার্য আছে। আদালতের কার্যক্রম শেষে তাদের ২ জনকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হবে। একই দিন (বুধবার) দণ্ডপ্রাপ্ত কামরুন নাহার মনি ও উম্মে সুলতানা ওরফে পপিকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হবে। তিনি আরও জানান, ফেনী জেলা কারাগারে ফাঁসির কোনো মঞ্চ নেই। কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে জনবল ও কনডেম সেলের সংখ্যা বেশি। দণ্ডপ্রাপ্তদের জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছুই সেখানে রয়েছে। যদি তাদের ফাঁসি কার্যকর হয় সেখানেই হবে। কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার ফোরকান আহমেদ জানান, নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ জনকে ফেনী কারাগার থেকে এই কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে তাদেরকে এই কারাগারে আনা হয়।    

প্রসঙ্গত গত ২৪শে অক্টোবর আলোচিত নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার ১৬ আসামির সবাইকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ দেন ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মামুনুর রশিদ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Mohammed Mohiuddin

২০১৯-১১-১২ ১৯:২৯:২৩

অনতিবিলম্বে এই ১৬জনকে ফাঁসির বিকল্প নেই । ইহা জঘন্যতম অপরাধ যত দ্রুত সম্ভব নারী আসামি সহ সব আসামিদেরকে দ্রুত ফাঁসি কার্যকর জরুরী দরকার । ইহাতে আইনের প্রতি যেমন শ্রদ্ধা বাড়বে অন্য দিকে অপরাধ প্রবণতা হ্রাস পাবে।

আপনার মতামত দিন

যে বিচারকরা হেগে বিচার করবেন

উল্লাপাড়ায় গৃহবধূর চুল কেটে দেয়া মামলার প্রধান আসামী জেলে

চেক প্রজাতন্ত্রে হাসপাতলে গুলিতে ৪ হত্যা

জয় বাংলা স্লোগান আমাদের অস্তিত্বের সাথে সম্পর্ক: হাইকোর্ট

হেগে রোহিঙ্গা নারীর ক্ষোভ

‘গাম্বিয়া গাম্বিয়া’ স্লোগানে মুখর রোহিঙ্গা ক্যাম্প

সুপ্রিম কোর্টের এফিডেভিট শাখার তদারকিতে দুই কর্মকর্তা

অপরাধী হলে শাস্তি পেতেই হবে

মানবতাবিরোধী অপরাধ: টিপু সুলতানের রায় বুধবার

নারায়ণগঞ্জে নারী শ্রমিককে গণধর্ষণ, আটক ৪

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে উত্তাল উত্তর-পূর্ব ভারত

আমরা একটি ফেয়ার এন্ড ভ্যালেন্সড সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে চাই

দেশে আজ মানবাধিকার বলতে কিছুই নেই: ফখরুল

মুসলিমদের বাদ রেখে নাগরিকত্ব বিল নিয়ে ভারতে বিতর্ক, বিক্ষোভ, ধর্মঘট

শহীদ মিনারে অজয় রায়কে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা, মরদেহ দেয়া হবে বারডেমে

আবারও মিয়ানমারের পাশে থাকার অঙ্গীকার চীনের