সিলেটে রবীন্দ্রনাথ শতবর্ষ স্মরণোৎসব

মেয়র আরিফ সদস্য সচিব বহাল

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে

শেষের পাতা ২২ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৪৭

তুমুল আলোচনা-সমালোচনার পরও সিলেটে রবীন্দ্রনাথ শতবর্ষ স্মরণোৎসবে সদস্য সচিবই থাকলেন সিলেটের বিএনপি দলীয় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। ১৪ দলের বৈঠকে আরিফকে সদস্য সচিব রাখা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন সিলেটের সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। ওই সময় কামরান আপত্তি তুলে বলেছিলেন- আরিফকে সরিয়ে যিনি রবীন্দ্রনাথকে বুঝেন ও ধারণ করেন সেই ব্যক্তিকে সদস্য সচিব করার জন্য। এ সময় ১৪ দলের আরো  কয়েকজন নেতাও কামরানের সঙ্গে সুর মিলিয়ে একই কথা বলেন। তাদের এই বক্তব্যের পর সাবেক অর্থমন্ত্রী ও স্মরণোৎসবের আহবায়ক আবুল মাল আবদুল মুহিত বিষয়টি পুনর্বিচনার জন্য সময় নিয়েছিলেন। তবে- মত পরিবর্তন করেননি সাবেক মন্ত্রী। তিনি পুনর্গঠিত কমিটিতেও সদস্য সচিব হিসেবে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকেই রাখলেন। আর গতকাল নিজের বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করে আবুল মাল আবদুল মুহিত সেটি ঘোষণা করলেন।
একই সঙ্গে তিনি উদযাপন পরিষদের তালিকাও প্রকাশ করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না সদস্য সচিব আরিফুল হক চৌধুরী। আর দাওয়াত পেয়েও সংবাদ সম্মেলনে যাননি সিলেটের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আজ থেকে শতবর্ষ আগে সিলেটে সফর করেছিলেন। এ কারনে প্রতিবছর সিলেটে রবীন্দ্রনাথের আগমনের দিনকে স্মরণ করা হয়। সেই ধারাবাহিকতায় এবার সিলেটে রবীন্দ্রনাথের শতবর্ষ স্মরণোৎসবের আয়োজন করা হয়। সাবেক অর্থমন্ত্রী ও সিলেটের প্রবীণ মুরব্বী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে আহবায়ক ও  মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে সদস্য সচিব করে প্রথমে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। স্মরণোৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু গঠিত কমিটি নিয়ে সিলেটের আওয়ামী লীগ সহ সিনিয়র সংস্কৃতি কর্মীরা অভিযোগ তুলেন- এ ‘কমিটি সার্বজনীন হয়নি’। পরবর্তীতে উদযাপন কমিটির সঙ্গে সিলেটের ১৪ দলীয় নেতাদের বৈঠকে বিষয়টি উপস্থাপন করা হয়। আপত্তি তোলা হয় আরিফকে নিয়ে। গতকাল দুপুরে নিজ বাসা নগরীর হাফিজ কমপ্লেক্সে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করা হয়েছিলো- ‘১৪ দলের নেতাদের আপত্তির পরও কেনো কমিটিতে রাখা হলো মেয়র আরিফকে।’ এ প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান- ‘রীবন্দ্রনাথকে নিয়ে প্রোগ্রাম নির্দলীয়। কোনো দলীয় নয়। আর নগর পিতা হিসেবে কমিটিতে রাখা হয়েছে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে। অন্য কোনো বিবেচনায় রাখা হয়নি।’ তার এই বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত করেননি উপস্থিত থাকা আওয়ামী লীগ নেতারা। তবে গতকাল ঘোষিত কমিটিতে প্রথম যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে সিলেটের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে রাখা হয়েছে। ১৪ দলের প্রস্তাবিত ব্যক্তি ব্যারিস্টার আরশ আলীকেও যুগ্ম আহবায়ক করা হয়। ‘সিলেটে রবীন্দ্রনাথ স্মরণোৎসব’ উদযাপন কমিটির প্রথম সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হননি সদস্য সচিব আরিফুল হক চৌধুরী। ব্যক্তিগত কারণে তিনি উপস্থিত থাকতে পারেননি বলে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়।

শেষের পাতা অন্যান্য খবর

আসামে কারফিউ শিথিল, নাগাল্যান্ডে ধর্মঘট

দ্বিতীয় দিনেও পশ্চিমবঙ্গে সহিংসতা

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

কেরানীগঞ্জে আগুন

সাখাওয়াতের শিক্ষক হওয়ার স্বপ্ন কি পূরণ হবে?

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

সংগ্রাম সম্পাদক রিমান্ডে

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

সিলেটে ফের গ্রেপ্তার দু’জন

বোরকা পরে চুরি করে বেড়ায় সীমা ও শামীমা

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯





আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত



কড়া নিরাপত্তা, এজলাসে সিসি ক্যামেরা

খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি কাল

সিলেটে ফের গ্রেপ্তার দু’জন

বোরকা পরে চুরি করে বেড়ায় সীমা ও শামীমা