তারুণ্যই মূল অস্ত্র জামালদের

স্পোর্টস রিপোর্টার

খেলা ১৩ অক্টোবর ২০১৯, রোববার

গত বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে কাতারের বিপক্ষে দারুণ ফুটবল খেলেছে বাংলাদেশ দল। ভালো খেললেও জামালরা ম্যাচটি হেরেছে ২-০ গোলে। ম্যাচের স্কোরলাইন দেখে বোঝার সাধ্য নেই ম্যাচে কতটা ভালো খেলেছে জেমি ডে’র শিষ্যরা। এ ম্যাচের অনুপ্রেরণা কাজে লাগিয়ে এবার ভারতের বিপক্ষে নামার অপেক্ষায় জামাল ভূঁইয়ারা। আগামী মঙ্গলবার কলকাতার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাভারতী স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। র‌্যাঙ্কিং অনুযায়ী বাংলাদেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে ভারত। এ ছাড়া যে কাতারের কাছে ০-২ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ, তাদের বিপক্ষেই আবার গোলশূন্য ড্র করেছে ভারত। ফলে মানসিক দিক থেকে মঙ্গলবারের ম্যাচে এগিয়ে থাকবে স্বাগতিকরাই।
স্বাভাবিকভাবে ম্যাচে ভারতকে ফেভারিটের মর্যাদা দিয়েছেন কোচ জেমি ডে। এদিকে ভারতকে হারানোর জন্য মরিয়া বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল মনে করেন তারুণ্যই তাদের মূল অস্ত্র।’
ভারত যেখানে ১০৪তম অবস্থানে বাংলাদেশ আরো ৮৩ ধাপ পিছিয়ে। বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ে এ দুটি দল মুখোমুখি হওয়ার আগে বাংলাদেশের কোচ জেমি ডে সেই পার্থক্যই তুলে ধরলেন। ভারতের নির্ভরযোগ্য সেন্টারব্যাক সন্দেশ জিঙ্গান কিছুদিন আগে লিগামেন্টের চোটে পড়েন। ছয় মাসের জন্য মাঠের বাইরে থাকবেন তিনি। স্বাভাবিকভাবেই বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলা হবে না তার। তাতে বাংলাদেশের যে খুব বেশি লাভ হবে, তা মানছেন না জেমি, ‘ওদের দলে গুরুত্বপূর্ণ কেউ চোটে পড়লো কি, না পড়লো তাতে এ সত্যটা বদলাচ্ছে না যে ভারতই এ ম্যাচে ফেভারিট। ভারত নিজেদের মাটিতে খেলতে নামবে এবং স্বাভাবিকভাবে তারাই এগিয়ে।’ কাতারের বিপক্ষে দু’দিন আগে ঘরের মাঠে হেরেছে বাংলাদেশ। এই কাতারের বিপক্ষেই ভারত দোহায় গিয়ে ড্র করে এসেছে। তবে নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে জেমির কোনো আক্ষেপ নেই, ‘দলের মধ্যে সবার মনোভাব ইতিবাচক। কাতারের বিপক্ষে পারফরম্যান্স নিয়ে আমরা যথেষ্ট সন্তুষ্ট।’  জেমি ডে’র অধীনে বাংলাদেশ ১৩ ম্যাচ খেলেছে, জিতেছে সাতটিতে। তার অধীনে দল আস্তে আস্তে শক্তিশালী হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় দলের এ কোচ, ‘আমাদের অনূর্ধ্ব-২৩ দলটা বেশ ভালো করছে। এশিয়ান গেমসে তারা অনেক ভালো খেলেছে। জাতীয় দলেও এজন্য তাদের সুযোগ দেয়া হচ্ছে। তবে শুধু তরুণ দিয়েও তো হয় না, এ কারণে দলে অভিজ্ঞতার মিশেলও আছে।
আমরা আস্তে আস্তে জিততে শিখছি, এটা অনেক ইতিবাচক একটা বিষয়।’ তবে এসব নিয়ে ভাবতে রাজি নন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া। তার মতে স্বাগতিক দল হওয়ায় ভারতই বেশি চাপে থাকবে। সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে জয়ের তাগিদ ও তারুণ্যকেই মূল হাতিয়ার বানিয়ে মাঠে নামার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন জামাল। ভারতের সংবাদ মাধ্যমে জামাল বলেন, ‘ঘরের মাঠে চাপটা বেশি ভারতেরই। কারণ ম্যাচটা ওদের জিততে হবে। প্রতিবেশী দেশের বিপক্ষে এই ফুটবল ম্যাচটা আমরা হারতে চাই না। ম্যাচে কড়াট্যাকল, ধাক্কাধাক্কি হবেই। আমাদের দলে অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবলারের সংখ্যা বেশি। ভারতকে হারানোর জন্য মরিয়া তাগিদ ও তারুণ্যই আমাদের অস্ত্র।’ এ সময় কাতারের বিপক্ষে ম্যাচের প্রসঙ্গ চলে আসলে জামাল বলেন, ‘কাতারের বিপক্ষে সুযোগ তৈরি করেও কাজে লাগাতে পারিনি আমরা। আমি নিজেই দু’টো সহজ গোলের সুযোগ নষ্ট করেছি। তিনবার গোললাইন থেকে বল বিপদমুক্ত করেছে কাতার। আমাদের ভাগ্য সঙ্গে ছিল না।’ সাহস ও মানসিকতায় শক্ত অবস্থান পরিষ্কার করলেও ভারতের তিন ফুটবলারের ব্যাপারে সতর্ক থাকার কথাও জানিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। তার মতে অধিনায়ক সুনিল ছেত্রি, উইঙ্গার উদান্ত সিং ও গোলরক্ষক গুরপ্রিত সিং সাধুর বিপক্ষে ভালো করতে পারলেই ফলাফল অনুকূলে আসতে পারে। বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘এর আগে দু’বার ভারতের বিরুদ্ধে খেলেছি। প্রথমবার ১-১ শেষ হয়েছিল। দ্বিতীয়বার ফল হয় ২-২। ওই দু’টো ম্যাচেই গোল করেছিল সুনীল।

খেলা অন্যান্য খবর

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ

ম্যানইউকে বাঁচালেন গ্রিনউড

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯





আপনার মতামত দিন

খেলা সর্বাধিক পঠিত