‘কাশ্মীরে জায়গা করে নেবে সন্ত্রাসীরা’

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৪০

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছেন বিরোধী কংগ্রেস দলের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী। বিশেষ করে জননিরাপত্তা আইনের অধীনে জম্মু-কাশ্মীরের ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ও সাবেক মুুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকে গ্রেপ্তার দেখানোতে ভীষণ চটেছেন তিনি। মঙ্গলবার তিনি বলেছেন, এনডিএ সরকার জাতীয় নেতাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে গান্ধী পরিবারের উত্তরসূরি রাহুল এমন অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, মোদি সরকার জম্মু-কাশ্মীরে রাজনীতি শূণ্য করে ফেলার চেষ্টা করছে। আর এই শূন্যস্থান তারা পূরণ করবে সন্ত্রাসীদের দিয়ে। কাশ্মীরে রাজনৈতিক নেতাদের গ্রেপ্তারের মাধ্যমে সরকার পুরো দেশকে একই রকম মেরুকরণের চেষ্টা করবে। তিনি আরো বলেন, এটা স্পষ্ট যে, সরকার ফারুক আবদুল্লাহর মতো জাতীয় নেতাদের সরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে জম্মু কাশ্মীরে রাজনৈতিক ক্ষেত্রকে শূণ্য করে দেয়ার চেষ্টা করছে।
তাই স্থায়ীভাবে ভারতকে মেরুকরণের একটি রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হতে পারে কাশ্মীরকে। টুইটে ফারুক আবদুল্লাহ সহ সব বন্দির অবিলম্বে মুক্তি দাবি করেন রাহুল। তিনি লিখেছেন, সরকারের উচিত হবে জম্মু কাশ্মীরে সন্ত্রাসীদের জন্য স্থান সৃষ্টি করে দেয়া বন্ধ করা। আর যতটা তাড়াতাড়ি সম্ভব জাতীয় নেতাদের মুক্তি দিতে হবে।

সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকে জননিরাপত্তা আইনের অধীনে গ্রেপ্তারে ভারতে সব বিরোধী দলের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। সম্প্রতি কাশ্মীর থেকে চিকিৎসার জন্য অল ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সে এসেছেন সিপিএম নেতা মোহাম্মদ ইউসুফ তরিগামি। তিনিও মোদি সরকারকে লক্ষ্য করে সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, ফারুক আবদুল্লাহ কোনো সন্ত্রাসী নন। তাকে অবিলমম্বে মুক্তি দিতে হবে। কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি খুবই হতাশাজনক।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

বেঁচে যাওয়াদের কথা

‘বিশ্বাস হচ্ছে না বেঁচে আছি’

৫ আগস্ট ২০২০

কাঁদছে লেবানন

৫ আগস্ট ২০২০



বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



ট্রাম্পের অভিবাসন বিষয়ক নির্দেশ-

যে প্রভাব পড়বে ভিসা ও গ্রিনকার্ডের ওপর

মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার রায়হান

ক্রাইম করিনি, মিথ্যা বলিনি