বেত ছুঁড়ে ছাত্রীর চোখ নষ্ট, শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, হবিগঞ্জ থেকে | ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৩:৫৭
হবিগঞ্জে বেতের আঘাতে ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী হাবিবা আক্তারের চোখ নষ্টকারী অভিযুক্ত শিক্ষক নিরঞ্জন সরকারকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। আজ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস তাকে সাময়িক বরখাস্তের নোটিশ দেয়। এছাড়া তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক।

আহত হাবিবা বর্তমানে জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অপারেশন করে তার চোখটি কেটে ফেলে দেয়া হয়েছে। মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটেছে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার যাদবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

উল্লেখ্য, গত রোববার ক্লাস চলাকালে সহকারি শিক্ষক নিরঞ্জন দাশ তার হাতের একটি বেত ছুঁড়ে মারলে তা সরাসরি হাবিবার চোখে লাগে। এতে তার  চোখ থেকে রক্তক্ষরণ শুরু হয়।

পরে স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় হাবিবাকে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে ডাক্তাররা পরীক্ষার পর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে সিলেটে রেফার করেন। পরে তার স্বজনরা হাবিবাকে ঢাকা চক্ষু হাসপাতালে নিয়ে যান।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানান, বেতটি সরাসরি হাবিবার চোখের  ভেতর আঘাত করায় চোখটি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক জানান, বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থায় শিক্ষার্থীদের বেত্রাঘাত করার ব্যাপারে কঠোর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। শুধু তাই নয়, শ্রেণিকক্ষে বেত নিয়ে যাওয়ারও অনুমতি নেই। যে শিক্ষক এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছেন, তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

রিপন

২০১৯-০৯-১১ ১৭:৫৭:১৭

এর চেয়ে এটিই কি নিরাপদ ছিল না - নিয়মিত ইসকুল পরিদর্শন করে এই জাতীয় পেটাপটির ইসকুলগুলোকে সরকারি অনুদান খেকে ও যুগপৎ শিক্ষামিন্তিকে তার দায়িত্ব, জনগণের টাকায় বেতন ভাতা গাড়ি বাড়ি বিদ্যুত গ্যাস জলসরবরাহ টেলিফোন প্রভৃতি সুবিধাদি থেকে ন্যূনতম লাগাতার চারমাসের জন্যে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে দেয়া? ইসকুলে বেত রাখাকে জায়েজ রেখে, শ্রেণীকক্ষে বেত বহনকে জায়েজ রেখে, হালকা মারধর না করলে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখায় মনোযোগী হবে না - এমন উদ্ভট সব কুসংস্কার চর্চা ম্যানেজিং কমিটিসহ সর্বস্তরে অব্যাহত রেখে, বিচ্ছিন্নভাবে শুধু একজন শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করে কী লাভ? শিক্ষকতো আর রোবট নয়, মানবিক রাগ, আবেগের বশর্বতী হয়ে যেকোন মুহূর্তে এ ধরনের দুর্গটনা ঘটেই যেতে পারে।

Reza

২০১৯-০৯-১১ ১৭:৩৩:০৫

He should be dismissed from job permanently. And, must face trial. The punishment should be example lesson for all teachers in the country. AND ALSO THE VICTIM SHOULD BE GIVEN AT LEAST TK-20,00000 (TWENTY LAC) FROM THAT CULPRIT TEACHER.ALTHOUGH THIS IS AN IRREPARABLE LOSS FOR HER.

Nil

২০১৯-০৯-১১ ০৪:৩০:৪০

School comitir kono daitto ase bole mone hoy na. Comitir kaj ki sodo vason dewa ar selfie tule fb te dewa. School bet kiser jonno. Rashter ki nirdesh ase bet use korar jonno. R comitir katha ki bolben, one pass kore ni, matal. Chor, bodmasra o ekhon dekhi masjid, school comitir boro pode ase. Ei to deser obosta. 1 pas councilor, 2 pass comitir manusra. 8 pass mp, ra

NIl

২০১৯-০৯-১১ ০৪:২৪:৫৯

Nironjo das ke ei mohirte sir bolte pari ni. Tai nironjo ke jalim, nishtor, ojoggo master bollam. Deri na kore. Mamla kore din. Na hoy abar kokhon shima na die pasetr dese palie jabe. R khoti porun koron beso kore.

Kazi

২০১৯-০৯-১১ ০৩:৩১:১৩

He should be dismissed from job permanently. And, must face trial. The punishment should be example lesson for all teachers in the country.

আপনার মতামত দিন

পাকিস্তান ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যাবে

পাকুন্দিয়ায় বাসচাপায় দুই স্কুলছাত্র নিহত

শোভন বললেন- ভালো থেকো

নবজাতককে হাসপাতালে রেখে পালিয়েছেন মা-বাবা

মমতাকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরামর্শ বিজেপি বিধায়কের

আওয়ামী লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

ফেনীতে বাসের ধাক্কায় ব্যবসায়ী নিহত

‘শিল্পীদের পাশাপাশি শ্রোতাদের সচেতনতাও জরুরি’

শোভন-রাব্বানী আউট

বাংলাদেশে ১০০০ কোটি ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা আমিরাতের ব্যবসায়ীদের

হাসিনা-মোদি বৈঠকে মুখ্য আলোচ্য হবে এনআরসি

ছাত্রলীগকে পদ না দেয়ায়...

আদালতের দিকে তাকিয়ে ছাত্রদল

ছিনতাইয়ের ঢাল যখন শিশু

কাশ্মীর সংকট সমাধানে ট্রাম্পকে সিনেটরদের চিঠি

ডেঙ্গু রোগী কমছে ঢাকার বাইরে তিনজনের মৃত্যু