লালমোহন পৌরসভা নির্বাচন আওয়ামী লীগের তুহিন বিএনপি’র শাহিন

বাংলারজমিন

হাসান পিন্টু, লালমোহন (ভোলা) থেকে | ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
লালমোহন পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থী চূড়ান্ত হয়েছে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান পৌরসভার মেয়র এমদাদুল ইসলাম তুহিন এবং বিএনপির প্রার্থী সাবেক মেয়র এনায়েত কবীরের ছোট ভাই লালমোহন প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সোহেল আজীজ শাহিন। শনিবার রাতে দুই দলের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়। তবে বিএনপির একক প্রার্থী থাকলেও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে থাকবেন বলে জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও সাবেক সালিশ বোর্ডের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক পঞ্চায়েত। জানা গেছে, শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়। পরে দলটির দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন। এর মধ্যে লালমোহন পৌরসভায় এমদাদুল ইসলাম তুহিনের নাম ঘোষিত হয়।
লালমোহন পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ৪ জন প্রার্থী মনোনয়ন চেয়েছিলেন। বর্তমান মেয়র এমদাদুল ইসলাম তুহিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক পঞ্চায়েত, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দিদারুল ইসলাম অরুন ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বাদল নৌকা প্রতীক পেতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেন। তারা বিভিন্নভাবে প্রচার প্রচারণাও চালান। এমনকি ৪ প্রার্থীই দলীয় মনোনয়ন ফরম জমাও দিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত এমদাদুল ইসলাম তুহিনই নৌকা প্রতীক পেলেন। এদিকে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে সোহেল আজীজ শাহিনের নাম ঘোষণা করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি সাবেক মন্ত্রী মেজর (অব) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ। উপজেলা যুবদল সভাপতি কবির হাওলাদার জানান, বিএনপির প্রার্থী ঘোষণার জন্য মেজর হাফিজের বাবভবনে দলীয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে কবীর হাওলাদার ও সোহেল আজীজ শাহিনের নাম আসে। কবীর হাওলাদার অসুস্থতাজনিত কারণে নির্বাচন করবেন না বলে জানালে সোহেল আজীজ শাহিনকে চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এর আগে গত মঙ্গলবার পৌরসভার নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করা হয়। ১৪ই অক্টোবর এ পৌরসভার ভোট গ্রহণ হবে। এর মধ্যে ১২ই সেপ্টেম্বর মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার শেষ তারিখ। মেয়র ছাড়াও প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রায় হাফ ডজন করে কাউন্সিলর প্রার্থী প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। পিছিয়ে নেই সম্ভাব্য মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীরাও। তারাও বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন। বর্তমান মেয়র এমদাদুল ইসলাম তুহিন বলেন, আমি বিগত সময়ে মেয়রের দায়িত্ব পালন করে যেসব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড করেছি তাতে জনগণ আমাকে আবারো নির্বাচিত করবে। আমি আবারো মেয়র নির্বাচিত হলে লালমোহন পৌরসভাকে উন্নয়নের রোল মডেল করবো। এ পৌরসভা থেকে মাদক নির্মূল, আধুনিকায়ন, রাস্তাঘাট নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করবো। উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ১০ই ডিসেম্বর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এরপর মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও মামলার কারণে দীর্ঘ ৯ বছর পর নির্বাচন হচ্ছে। লালমোহন পৌরসভায় মোট ভোটার রয়েছে ১৯ হাজার ৮০। তার মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ৮৮ আর মহিলা ভোটার ৯ হাজার ৩৯২।
উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার আমির খসরু গাজী জানান, লালমোহন পৌরসভার নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহের শেষ তারিখ ১২ই সেপ্টেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই ১৫ই সেপ্টেম্বর, প্রত্যাহার ২২শে সেপ্টেম্বর। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১৪ই অক্টোবর। নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ছাত্রদলের দুই নেতার কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ

বৈধ প্রতিষ্ঠানে তো অভিযান চালাইনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের নামে এনআইডি তৈরিতে ইসির  ১৫ কর্মকর্তা-কর্মচারী জড়িত: এনআইডির পরিচালক

জি কে শামীম ও খালেদের পরিবারের সদস্যদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ

রাজধানীর ফু-ওয়াং ক্লাবে পুলিশের অভিযান

ছাত্রদলের উপর হামলায় ফখরুলের নিন্দা

ট্রাম্পের সঙ্গে ইমরান খানের বৈঠক আজ

এবার ময়লা ছুঁড়ার জবাব গোলে দিলেন নেইমার

নায়িকার সঙ্গে আড্ডা

ইয়াবাসহ আওয়ামী লীগ নেতার পুত্র গ্রেপ্তার

‘অভিযান নিয়ে যেন আতঙ্ক না ছড়ায়’

ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত-২০

‘অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদারিতে রাখা হয়েছে’

মোদির বিরুদ্ধে পররাষ্ট্রনীতি লঙ্ঘনের অভিযোগ

‘নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আটক দু’ভাই জেএমবি’র সদস্য’

ম্যাসেজ পার্লারে আলো-আঁধারের আড়ালে