অজ্ঞান পার্টি বেপরোয়া

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ৯ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৭:৪১
আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে অজ্ঞান ও মলম পার্টি দাপিয়ে বেড়াচ্ছে রাজধানীর বাস টার্মিনাল, রেল স্টেশন ও লঞ্চঘাটে। বিশেষ করে পশুরহাট তাদের টার্গেট। জনবহুল এলাকা বা বিপনী বিতানের আশপাশেও তাদের তৎপরতা রয়েছে। অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা ঠেকাতে তৎপর রয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এই পার্টির অপতৎপরতা ঠেকাতে পোশাকে ও সাদা পোশাকে রাজধানীর বিভিন্নস্থানে অবস্থান ও অভিযান চালাচ্ছেন তারা। ঈদ উপলক্ষে ওইসব দুর্বৃত্তদের ধরতে ঢাকা মহানগর ডিবি পুলিশে বিশেষ টিম গঠন করা হয়েছে। এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের ডিসি (পশ্চিম) মোখলেসুর রহমান মানবজমিনকে জানান,  কোন উৎসব উপলক্ষে অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা বাড়ে। এই বিষয়টিকে সামনে রেখে ডিবি পুলিশ তৎপর রয়েছে।
ওইসব দুর্বৃত্তদের ধরতে বিভিন্ন সময় অভিযান চালানো হয়। তিনি আরও জানান, তবে ঈদ উপলক্ষে ডিবির দক্ষিণ বিভাগে আলাদা একটি টিমকে সর্বক্ষণ নজরদারি করার জন্য বলা হয়েছে।

ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় প্রতিদিনই ঢাকার বিভিন্নস্থানে অজ্ঞান ও মলম পার্টির সদস্যরা সাধারণ মানুষদের যানবাহনে বা রাস্তায় বিভিন্ন খাদ্যের সঙ্গে নেশা জাতীয় ওষুধ কৌশলে সেবন করিয়ে টাকা ও মূলবান জিনিসপত্র হাতিয়ে নিচ্ছে। মলম বা রাসায়নিক পদার্থের বিষক্রিয়ার তীব্রতায় ভুক্তভোগীরা শারীরিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। বিশেষ করে বিভিন্ন উৎসব পার্বনে নগদ টাকা বহন এবং এর ব্যবহার বেড়ে যায়। এসময় অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের তৎপর বেড়ে যায়। এদের দৌরাত্ম্য থামাতে আসন্ন ঈদ উপলক্ষে ডিবি পুলিশের সদস্যরা মাঠে কাজ করছেন।

সূত্র আরও জানায়, অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের ধরতে পুলিশ নিরন্তর অভিযান চালায়। এদের চাইলে পুলিশ দমন করতে পারে না। এসব অপরাধীরা এক জায়গায় থাকে না। বিভিন্ন সময় বসবাসের এলাকা পরিবর্তন করে। অনেক সময় পেশাও পরির্বতন করে। অনেকেই ভাসমান হিসাবে থাকে। এতে তাদের ধরতে পুলিশকে বেগ পেতে হয়।
ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা জানা গেছে, রাজধানীতে অজ্ঞান ও মলম পার্টির প্রায় ১২ টি চক্র আছে। এই চক্রের সঙ্গে প্রায় ৩০০ জন সদস্য জড়িত। প্রত্যেক চক্রের সঙ্গে একজন করে দলনেতা রয়েছে। তারা দলনেতার পরমর্শক্রমে বিভিন্নস্থানে ওইসব অপকর্ম করে। ইতিমধ্যে ওই চক্রের সব নাম ঠিকানা ডিবি পুলিশের সদস্যরা সংগ্রহ করছেন। গত সপ্তাহে যাত্রাবাড়ি এলাকা থেকে অজ্ঞান পার্টির দলনেতা কামালসহ ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের সূত্র ধরে বিভিন্নস্থনে অভিযান চালাচ্ছে ডিবি পুলিশের সদস্যরা।

পুলিশ জানায়, অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা অধিকাংশই এখন হকারের বেশ ধারণ করে ওই কর্মকান্ড করছে। তারা হকারের বেশ ধারণ করে চা, সিগারেট, শসা, এবং আচার বিক্রি করছে। কেউবা ভ্রামমাণ অবস্থায় ডাব বিক্রি করছে।
সূত্র আরও জানায়, যেসব অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা আগে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিল তারা অনেকেই জামিনে মুক্ত হয়ে কারাগার থেকে ছাড়া পেয়েছে। তারা অনেকেই আগের পেশায় ফিরে গেছে। ওইসব দুর্বৃত্তদের ধরার জন্য মাঠে কাজ করছে ডিবি পুলিশের বিশেষ টিম। এ ক্ষেত্রে মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন সোর্সকে কাজে লাগাচ্ছে ডিবি পুলিশ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

টাকা কুড়াতে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়লেন শতাধিক মানুষ

অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়িত হলে দায়িদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

আদালতে নেয়া হচ্ছে সম্রাটকে, যুবলীগ কর্মীদের ভিড়

গরম তেলে ঝলসে দিয়ে স্ত্রীকে তালাবদ্ধ

ডার্ক গ্রে তালিকাভুক্ত হতে পারে পাকিস্তান

ভারতে শাখা বিস্তার করছে জেএমবি

আন্দোলনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত দুপুরে

মেক্সিকোতে অস্ত্রধারীদের গুলিতে নিহত ১৩ পুলিশ

তুরস্কের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ, ইইউয়ের অস্ত্র বিক্রি স্থগিত

সুন্দরবনে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ বনদস্যু নিহত

শায়েস্তাগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় যুবক নিহত

নবীনগর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী জয়ী

লক্ষ্মীপুরে দু’দল ডাকাতের ‘গোলাগুলি’তে একজন নিহত

যেভাবে ভারতের ওপর নির্ভরশীলতার ইতি টানতে চায় নেপাল

শায়েস্তাগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত নিহত

মুখোমুখি তুরস্ক ও সিরিয়ার সেনাবাহিনী?