নিজের পেটে গুলি চালিয়ে ফিরোজ রশীদের পুত্রবধূর আত্মহত্যার চেষ্টা

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ৮ জুলাই ২০১৯, সোমবার, ১২:০২ | সর্বশেষ আপডেট: ৩:০৫
নিজের পেটে নিজেই গুলি চালিয়েছে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদের পুত্রবধূ। গুলিবিদ্ধ ফিরোজ রশীদের ছেলের বউয়ের নাম মেরিনা শোয়েব। বর্তমানে তিনি ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ধারনা করা হচ্ছে, তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। রোববার রাত ৯টার দিকে ধানমন্ডি ৯/এ-এর বাসায় এ ঘটনা ঘটে।  

পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানিয়েছেন, ২ বছর আগে ফিরোজ রশিদের ছেলে কাজী শোয়েব রশিদের সঙ্গে মেরিনার ডিভোর্স হয়ে যায়। কিন্তু নিজের বাবার বাড়িতেও ঠাঁই না হওয়ায় তিনি ওই বাড়িতেই ফিরে এসে মেয়ের সঙ্গে থাকতেন।   

ধানমন্ডি থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. পারভেজ ইসলাম পিপিএম বার জানান, ২০১৭ সালে ফিরোজ রশিদের ছেলের সঙ্গে মেরিনার ডিভোর্স হয়। মেরিনা উচ্ছৃংখল জীবন-যাপন করতেন।
এ কারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বনিবনাও হতো না। পরিবার তার এ ধরনের জীবন-যাপন মেনে নিতে না পারায় মেরিনা নিজেই এ ডিভোর্স দেন।

ডিভোর্সের পর তিনি নিজের বাবার বাড়ি চলে যান। কিন্তু তাকে তার বাবাও জায়গা দেয়নি। পরে উপায় না পেয়ে আবার ফিরে আসেন। তার অনুনয়-বিনয়ের কারণে ওই বাড়িতে থাকার সুযোগ দেয়া হয়। তিনি তার ২০ বছর বয়সী মেয়ের সঙ্গে এককক্ষে থাকতেন। একই বাড়িতে থাকলেও শোয়েব রশিদের সঙ্গে তার কোন যোগাযোগ ছিলো না।  
মেরিনার বরাত দিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা পারভেজ জানান, রাতে বাসায় কেউ ছিলো না। ওই সময় শোয়েব রশিদের ঘরের আলমারি থেকে পিস্তল বের করে তিনি নিজেই নিজের পেটে গুলি চালান। পরে বিষয়টি জানতে পেরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে ল্যাবএইড হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তার অস্ত্রোপচার করা হয়।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

রিপন

২০১৯-০৭-০৮ ২১:০৭:২৩

মেরিনা এমন কী উচ্ছৃঙ্খল জীবন যাপন করতো যে বাপের বাড়িতেও ঠাঁই মিললো না? নারীর ক্ষমতায়ন বাগাড়ম্বরমাত্র। স্বনির্ভর হতে পারলে ওই নারী মেয়েকে নিয়ে এসে নিজের আলাদা বাসায়ই থাকতো, গ্লানিময় ওই শ্বশুরবাড়িতে ফের ফিরে যেত না। মেরিনার এসব স্বজনরাই তাকে দিনে দিনে তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে যার চূড়ান্ত পরিণতিতে ঘটেছে এটি। রিপোর্টিংটি আরও গভীরের বিশদ তথ্য নিয়ে করলেই শোভন কল্যাণকর হতো। অবশ্য, পুরুষতান্ত্রিক এই সমাজব্যবস্থায় সামন্তবাদী মানসিকতার দাসত্ব থেকে ক'জনই বা মুক্ত!

আপনার মতামত দিন

কাল জরুরী বৈঠকে বসছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট

বরগুনায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৫০

কুষ্টিয়ায় ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার

ভারতের হোমে থাকা বাংলাদেশি নাবালকদের ফেরত পাঠানো নিয়ে আলোচনা

আফগানিস্তানে মসজিদে জঙ্গি হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৯

ভুয়া ফেসবুক আইডি নিয়ে বিব্রত ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক

ফিক্সিংয়ের দায়ে প্রোটিয়া ক্রিকেটারের ৫ বছরের জেল

অনুমতি ছাড়াই ফ্রান্সের ৮ নাগরিক খাগড়াছড়িতে

ফরিদপুরে বাবার হাতে ছেলে খুন

নলডাঙ্গায় কলেজ ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার

১৬ লাখ টাকার সিসি ক্যামেরা দুই বছরেই অচল

‘বাংলাদেশের সাবধানতা অবলম্বন করা উচিৎ’

নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎকে নিয়ে বিজেপির লাগামহীন কুৎসা

ব্রিজে উঠতে লাগে মই

যুক্তরাষ্ট্র-ভারত প্রতিরক্ষা বাণিজ্য দাঁড়াবে ১৮০০ কোটি ডলারে

শরণখোলায় ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তার