রিফাতের দুই হত্যাকারীর যত অপকর্ম

অনলাইন

মো. মিজানুর রহমান, বরগুনা থেকে | ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১:২৪ | সর্বশেষ আপডেট: ২:৩৭
বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে রিফাত শরফিকে কুপিয়ে হত্যাকারী কারা- এ প্রশ্ন এখন মানুষের মুখে মুখে। হঠাৎ করেই কি দুর্ধর্ষ হয়ে ওঠেছে, নাকি পূর্বেও অপরাধ জগতের সঙ্গে সখ্যতা ছিলো তাদের। অনুসন্ধানে ওঠে এসেছে তাদের অপকর্মের নানা খতিয়ান। ছিনতাই, মাদক, হামলাসহ নানা অপকর্মের হোতা এই দুই খুনী।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র বলছে, হত্যাকারী দুই জনের একজন রিফাত ফরাজী, আরেকজন নয়ন (২৫) বন্ড। দু’জনই অনেক আগে থেকেই অপরাধ জগতের পরিচিত মুখ। তাদের কারণে এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ।

এদিকে রিফাত শরীফকে (২৫) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ১২ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ। আজ সকাল ৯টার দিকে ১২ জনের নাম উল্লেখ করে বরগুনা সদর থানায় এই হত্যা মামলা দায়ের করেন তিনি।
মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে খুনের মূল হোতা হিসেবে অভিযুক্ত সাব্বির হোসেন নয়নকে যিনি এলাকায় ‘নয়ন বন্ড’ নামেও পরিচিত। দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজি, তিন নম্বর আসামি রিশান ফরাজি, চার নম্বর আসামি চন্দন। এর মধ্যে চন্দনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

এলাকাবাসী জানান, মাদক ব্যবসা, মাদক সেবন ও ছিনতাইসহ নানা অপকর্মে যুক্ত ছিলেন খুনী রিফাত ফরাজী। এ কারণে স্থানীয়দের কাছে আতঙ্ক সে। রিফাতের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন, এমন মানুষের সংখ্যা কম নয়। প্রতিবেশী ও স্থানীয়দের ওপর হামলা, মারধর খুনী রিফাতের নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। এসব অপকর্মে কয়েকবার গ্রেপ্তার হলেও অজ্ঞাত এক কারণে খুব স্বল্প সময়েই মুক্তি পেয়ে সে। ২০১৭ সালের ১৫ই জুলাই সন্ধ্যায় তরিকুল ইসলাম (২১) নামে এক প্রতিবেশীকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে রিফাত ফরাজী।

ঘটনার শিকার তরিকুল জানান, একদিন সামান্য কথা কাটাকাটি হয় রিফাত ফরাজীর সঙ্গে। তখন রিফাত ফরাজী তাকে কুপিয়ে জখম করার হুমকি দেন। রিফাত ফরাজীর ভয়ে তিনি দেড় মাস রিফাত ফরাজীর বাসার সামনে দিয়ে না গিয়ে আধা কিলোমিটার পথ ঘুরে তার বাসায় যাওয়া আসা করতেন। হুমকি দেয়ার দেড় মাস অতিবাহিত হওয়ার পর একদিন সন্ধ্যায় রিফাত ফরাজীর বাসার সামনে দিয়ে যাওয়ার পথে তাকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মাথায় গুরুতর জখম করেন। এ ঘটনায় তরিকুলের বাবা বাদী হয়ে একটি মামলা করেন।

একই বছর রিফাত বরগুনার হোমিও চিকিৎসক ডা. আলাউদ্দিন আহমেদের ডিকেপি রোডের বাসার ছাত্র মেসে গিয়ে ধারালো অস্ত্রের মুখে সব ছাত্রদের জিম্মি করে ১৪টি মোবাইল ছিনতাই করে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করা হলে পুলিশ রিফাতের বাবা দুলাল ফরাজীকে আটক করে মোবাইলগুলো উদ্ধার করেন।


বরগুনার বেতাগী উপজেলার কাজিরাবাদ ইউনিয়নের বাসিন্দা মারজানা মনি বলেন, ২০১৭ সালের রমজানে আমার একমাত্র ছোট ভাই হাফেজ মো. মেহেদী হাসান বরগুনার হোমিও চিকিৎসক আলাউদ্দিন ডাক্তারের বাসা সংলগ্ন মসজিদে তারাবির নামাজ পড়াতো। ওই সময় একদিন রিফাত ফরাজী মেহেদীর কাছ থেকে স্যামস্যাং গ্যালাক্সি কোর প্রাইম মডেলের বিদেশ থেকে আনা একটি ফোন ছিনিয়ে নেন। বিষয়টি রিফাত ফরাজীর মা-বাবাসহ স্থানীয় অনেককে জানানোর পরও মোবাইলটি কেউ উদ্ধার করে দিতে পারেনি। পরে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করার পর সাড়ে সাত হাজার টাকার বিনিময়ে মোবাইলটি ফিরিয়ে দিয়ে হুমকি দেন রিফাত ফরাজী। তার হুমকিতে ওই এলাকা ছেড়ে পালিয়ে আসে আমার ভাই।

অপর খুনী নয়ন বন্ডের (২৫) বাসা বরগুনা সরকারি কলেজের দক্ষিণ-পশ্চিমে বরগুনা পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডে। নয়নের বাবা মৃত মো. ছিদ্দিকুর রহমান। দুই ভাইয়ের মধ্যে নয়ন ছোট। নয়নের বড় ভাই মিরাজ দীর্ঘদিন ধরে সিঙ্গাপুর প্রবাসী হওয়ায় মাকে নিয়েই ওই বাসায় বসবাস করছে নয়ন। ২০১৭ সালের ৫ই মার্চ রাত ১১টার দিকে নয়ন বন্ডের বাসায় অভিযান চালায় বরগুনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। এ সময় বিপুল পরিমাণ মাদক, দুটি দেশীয় অস্ত্র ও এক সহযোগীসহ নয়ন বন্ডকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসব মাদকের মধ্যে ছিল ৩০০ পিস ইয়াবা, ১২ বোতল ফেনসিডিল ও ১০০ গ্রাম হেরোইন।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বরগুনা সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ও অস্ত্র আইনে দুটি মামলা করে নয়ন বন্ড ও তার সহযোগি ইমামের বিরুদ্ধে। পরে তাদের জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ। দীর্ঘদিন জেলে থাকার পর সম্প্রতি জামিনে বেরিয়ে আসেন নয়ন বন্ড। জেল থেকেই বেরিয়ে মূলত এ হত্যাকান্ড ঘটায় সে।

এ বিষয়ে বরগুনা সদর থানার ওসি আবীর হোসেন মাহমুদ বলেন, নয়ন বন্ডের মাদক বাণিজ্যের কথা আমরা জানি। এছাড়া তার বিরুদ্ধে মাদক ও অস্ত্র মামলাসহ একাধিক মামলার কথাও আমরা জেনেছি। এর আগে নয়ন ও তার সহযোগি জেল খেটেছে। জামিনে তারা বেরিয়ে যায়। রিফাত শরীফ হত্যাকা-ে জড়িত নয়নসহ সবাইকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

হত্যাকা-ের শিকার রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বলেন, নয়ন প্রতিনিয়ত আমার পুত্রবধূকে উত্ত্যক্ত করত এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর পোস্ট দিত। এর প্রতিবাদ করায় আমার ছেলেকে নয়ন তার দলবল নিয়ে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। তিনি বলেন, আমার একমাত্র ছেলেকে যারা দিনে-দুপুরে কুপিয়ে হত্যা করেছে, তাদের বিচার চাই।

প্রসঙ্গত, বুধবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শত শত লোকের উপস্থিতিতে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। তার স্ত্রী আয়শা আক্তার মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও তাদের দমাতে পারেননি। একাধারে রিফাতকে কুপিয়ে বীরদর্পে অস্ত্র উঁচিয়ে এলাকা ত্যাগ করে হামলাকারীরা। তারা চেহারা লুকানোরও কোনও চেষ্টা করেনি। গুরুতর আহত রিফাতকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Jassim Shah

২০১৯-০৬-২৭ ০৮:০৭:২২

Better direct cross fairing public please

Mizanur Rahman

২০১৯-০৬-২৭ ০৭:৫৬:২৪

অনেক নিরীহ লোকেরা ভূয়া মামলায় বছরের পর বছর জেলের ঘানি টানতেছে তাদের কোনো জামিন হয় না, অথচ এই সমস্ত সন্ত্রাসীরা জেলে ঢুকার সাথে সাথে জামিনে বাহির হইয়া যায়। এরা জামিন পায় কিভাবে?? যেই বিচারকেরা এই সমস্ত সন্ত্রাসীদেরকে জামিন দিয়া বাহির করিয়া দেয়, ঔ বিচারকদেরও বিচার হওয়া উচিত।

Mustafizur Rahman

২০১৯-০৬-২৭ ০৭:৫৫:০৬

প্রকাশ্য দিবালোকে যারা এ ঘটনা ঘটিয়ে বীরদর্পে চলে যেতে পারে তারা বেঁচে থাকলে আরো নৃশংস ঘটনা ঘটবে। একমাত্র সমাধান crossfire.

FAruki

২০১৯-০৬-২৭ ০৬:৪১:২৩

We need to back to cross fire again. Otherwise we will go to hell day by day. We requesting to our honourable Prime Minister about the cross fire. It is essential at present in Bangladesh. Because raped in bus. Murder etc

কামাল হোসেন ভূঁইয়া

২০১৯-০৬-২৭ ০২:২৬:৫৫

মাদকের কালো দাবার ফলাফল এটা। এই মাদকের ভয়ঙ্কর ছোবলে যুব সমাজ ও জাতি ধ্বংসের কিনারায়। সমাজের কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি ও প্রশাসনের কিছু কুলাঙ্গার লোকের কারণে এইসব সন্ত্রাসী সৃষ্টি হয়। সরকারের উচিত সবার আগে এই সন্ত্রাসীগোষ্ঠী তৈরির কারিগরগুলোকে আইনের আওতায় আনা।

আপনার মতামত দিন

ঢাবির উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন ৩১ জুলাই

এবার গ্রেপ্তার রিশান ফরাজী

প্রতি ইঞ্চি জমি থেকে অনুপ্রবেশকারীদের খুঁজে বের করব: অমিত শাহ

যমুনায় পানি বৃদ্ধি অব্যাহত, সিরাজগঞ্জে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত

আসামে বন্যায় মৃত ২৭, বিপদসীমার ওপরে ব্রহ্মপুত্র ও শাখা নদী

সিরাজগঞ্জে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট শুরু

মাত্র তিন মাস বাড়লো তসলিমা নাসরিনের ভিসার মেয়াদ

৮ দিন ধরে ঘরের চালে নুর বানু (ভিডিও)

কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ পুনর্বিবেচনা করতে পাকিস্তানকে আইসিসির নির্দেশ

বন্যার পানি ভাসিয়ে নিলো নবদম্পতির সংসার (ভিডিও)

অভিবাসী ছিলেন ট্রাম্পের দাদা, ঠাঁই পাননি নিজদেশে

বাবার পর এবার মিললো ছেলের লাশ

প্রবল স্রোতে ফেরি চলাচল ব্যাহত পাটুরিয়ায় আটকে আছে কয়েকশ’ যানবাহন

‘আমার নামে অশ্লীলতার বদনাম আনা হয়েছিল’

ফিলিস্তিনে ইসরাইলী দখলদারিত্বের নিন্দা ঢাকার

বাংলাদেশে প্রতি ৬ জনে অপুষ্টিতে ভুগছে একজন