ইজতেমা নিয়ে আদালতে আসা লজ্জাকর

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:০৩
বিশ্ব ইজতেমার মতো ধর্মীয় বিষয় আদালত পর্যন্ত গড়ানো ‘লজ্জাকর’ বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। ইজতেমা অনুষ্ঠানের নির্দেশনা চেয়ে করা রিটের শুনানিতে এ মন্তব্য করে ধর্মীয় এ আয়োজনে সব পক্ষকে শান্তি  বজায় রাখতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে জানানো হয় আজ বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি জরুরি বৈঠকে ইজতেমা নিয়ে নির্দেশনা আসতে পারে। এর প্রেক্ষিতে ২৭শে জানুয়ারি পর্যন্ত রিট আবেদনের শুনানি মুলতবি করেন আদালত।
রিটের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী মো. ইউনুস মোল্লা ও আইনজীবী শাহ মো. নুরুল আমিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু। শুনানির শুরুতে আদালত রিটের আইনজীবীর কাছে জানতে চান, এখন তাবলীগ জামাতের কাজ-কর্মে কোনো বাধা আছে? আইনজীবী শাহ মো. নুরুল আমিন বলেন, গত ২৪শে সেপ্টেম্বর ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা পরিপত্রের কারণে বাধা আছে।
তিনি বলেন, মাওলানা সাদ তার বক্তব্যে বলেছিলেন, ধর্মীয় শিক্ষা বা ধর্মীয় প্রচারণা অর্থের বিনিময়ে করা উচিত নয়। মিলাদ বা ওয়াজ মাহফিলের মতো কর্মকাণ্ডও এর মধ্যে পড়ে। এই বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করে একটা গ্রুপ মাদরাসা ছাত্রদের উত্তেজিত করেছে। তিনি জানান, তাবলীগ জামাতের কোনো কমিটি নেই। ১১ জন শূরা সদস্য নিয়ে গঠিত। এর মধ্যে ৬ জন একদিকে আর ৫ জন আরেকদিকে।

আদালত রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীর মতামত জানতে চাইলে মোতাহার হোসেন সাজু বলেন, তাবলীগের মধ্যে দুইটা গ্রুপ আছে। একটা গ্রুপ আলোচনায় আসতে রাজি হলেও অন্য গ্রুপ আসছে না। আগামীকাল আজ বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

এ সময় আইনজীবী মো. ইউনুস মোল্লা বলেন, গত ১৮ই সেপ্টেম্বরের পরিপত্র অনুযায়ী, আলাদা আলাদা কাজকর্ম হলে সমস্যা নেই। তাতে শৃঙ্খলাও থাকবে।

শুনানির এক পর্যায়ে জ্যেষ্ঠ বিচারপতি রিটের আইনজীবীর উদ্দেশে বলেন, ‘ইজতেমার মতো ধর্মীয় বিষয় নিয়ে আদালতে আসা ‘লজ্জাকর।’ আপনারা নিজেরা বিভক্ত হলে দ্বীনের প্রচার করবেন কীভাবে? আগে নিজেরা সংশোধন হন, সুস্থ হন এবং নিজেদের মধ্যকার বিভেদ নিরসন করুন। শান্তিপূর্ণ অবস্থায় থেকে ঐক্যবদ্ধ হন। আলোচনা করে সমাধান করা গেলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে।’  গত সোমবার বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. ইউনুস মোল্লা। রিট আবেদনে ধর্ম সচিবসহ তিন জনকে বিবাদী করা হয়। প্রসঙ্গত টঙ্গীর তুরাগ তীরে তাবলীগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। গত দুই বছর থেকে ইজতেমা আয়োজন করা হচ্ছিল দুই দফায়। এরমধ্যে তাবলীগ-জামাতের দ্বন্দ্বের বিষয়টি সামনে এসেছে। চলমান এ দ্বন্দ্ব-সংঘাতের কারণে পূর্বনির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত হয়নি ২০১৮ সালের বিশ্ব ইজতেমা। তাবলীগ জামাতের কেন্দ্রীয় নেতা ভারতের মাওলানা মোহাম্মদ সা’দ কান্দালভির অনুসারীদের সঙ্গে অপর গ্রুপের সংঘাত রক্তারক্তিতেও রূপ নিয়েছিল গত ১লা ডিসেম্বর। সংঘর্ষে ১ জন নিহত এবং ১৩০ জনের মতো আহত হন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে সিবিআই

ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী চিদাম্বরম গ্রেপ্তার

বিএনপি-জামায়াতের পৃষ্ঠপোষকতায় ২১শে আগস্ট হামলা

পরিচ্ছন্নতা অভিযানের পরের দিন আগের চিত্র

কাশ্মীর ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ

কাশ্মীরের যে এলাকা এখনো মুক্ত

সর্ষের মধ্যে ভূত থাকতে নেই: হাইকোর্ট

ফেসবুক গ্রুপ ‘গার্লস প্রায়োরিটি’র অ্যাডমিন কারাগারে

বিতর্ক দমাতে ফুটেজ চান মেয়র আরিফ

ঢাকা-দিল্লি সম্পর্ক ইতিবাচক পথেই রয়েছে: জয়শঙ্কর

কে হচ্ছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও মুখ্য সচিব

তারেকের সর্বোচ্চ শাস্তির জন্য আপিল করা হবে

ডেঙ্গু পরিস্থিতি: রোগী কমে-বাড়ে ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি ১৬২৬

এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় দুই সিটিতে ৩৯০০০০ টাকা জরিমানা

মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে নতুন করে অস্থিরতা নিহত ১৯

৫ বছরে আমানত ৫ হাজার কোটি টাকা