দ্রুত অবৈধ অভিবাসীদের বের করে দেয়ার নির্দেশ ট্রাম্পের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৫ জুন ২০১৮, সোমবার
কোনো বিচার বা আদালতের ঝক্কি ঝামেলায় না গিয়ে অবৈধভাবে যেসব অভিবাসী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছে তাদেরকে তাদের স্ব স্ব দেশে ফেরত পাঠাতে বলেছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। সম্প্রতি মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে অবৈধ উপায়ে বিপুল সংখ্যক মানুষ প্রবেশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রে। তাদের কাছ থেকে শিশু সন্তানদের আলাদা বন্দিশিবিরে আটক রাখা হয়। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন ট্রাম্প। পরে তিনি নির্দেশ দেন অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশকারী পিতামাতাদের কাছ থেকে যেন তাদের সন্তানদেরকে আলাদা করা না হয়। কিন্তু রোববার তিনি নতুন একটি টুইট করেছেন। তাতে বলেছেন, আমাদের দেশে এসব মানুষকে আগ্রাসন চালাতে অনুমতি দিতে পারি না আমরা। যখনই এমন কেউ আমাদের দেশে প্রবেশ করবে, সময়ক্ষেপণ না করে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো বিচারকের বা আদালতের আশায় বসে না থেকে তাদেরকে বহিষ্কার করতে হবে, যেখান থেকে তারা এসেছে।
আমাদের সিস্টেমটা খুবই ভাল অভিবাসন নীতি ও আইন শৃংখলা রক্ষার। যুক্তরাষ্ট্রের অনেক শিশু এসেছে পিতামাতা ছাড়া। উল্লেখ্য, মে এবং জুন মাসে অবৈধ সীমান্ত পেরিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করা পিতামাতাদের কাছ থেকে ২৩ শতাধিক শিশুকে আলাদা করে আলাদা আশ্রয়শিবিরে রাখা হয়েছে। যারা এভাবে সীমান্ত অতিক্রম করেছে তাদের বিরুদ্ধে ট্রাম্প প্রশাসন শূন্য সহনশীলতা নীতি গ্রহণ করে। তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি অপরাধে বিচার হওয়ার কথা।  এভাবে অভিবাসী আসা ও তাদেরকে আটক করার ঘটনায় প্রচন্ড সমালোচনার মুখে পড়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এমন কি তার নিজ দল রিপাবলিকানের ভিতর থেকেও তার বিরুদ্ধে সমালোচনা করা হয়েছে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জসিম উদ্দীন ভুঁঞা

২০১৮-০৬-২৫ ১০:০৬:০০

অবৈধ ভাবে এক দেশ থেকে অন্য দেশে আসলে যেই দেেশ আসবে সেই দেশের সরকার যা করবে তা মেনে নিতেই হবে। তোমার নিজের দেশে ভালো লাগে না বা থাকতে না পেরে অন্য দেশে অবৈধ ভাবে এসেছো, এখন ঐ দেশ তোমাকে গ্রহন করতেও পারে আবার বেরও করে দিতে পারে।

শফিকুল ইসলাম

২০১৮-০৬-২৫ ০৭:৫৫:৪২

সেটাই তো স্বাভাবিক। রাস্ট্রে অনুপ্রবেশ ঠেকানোর অধিকার সব রাস্ট্রের আছে

sdd

২০১৮-০৬-২৫ ১৮:৪৮:১৪

শিশুরাও তো তাদের পিতামাতার সাথে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী, তাদেরকে তাদের বাবা-মায়ের সাথে বের করে দেয়া হোক। আমেরিকার আইন প্রণেতাদের শিশুদের প্রতি অযৌক্তিক ব্যবহার তাদের প্রতি অন্যায় আচরণ করছে। মমতাহীন রাষ্টের চেয়ে শিশুরা তাদের মমতাময় বাবা-মায়ের সাথে ভালো থাকবে।

আপনার মতামত দিন

বিমানবন্দরে আত্মহত্যার চেষ্টা করা রুনা বললেন আমি মরতে চাই

দুর্নীতিবাজদের নিয়ে জোট করে সরকার উৎখাতের চেষ্টা হচ্ছে

সহস্রাধিক সাইট পেজে নজরদারি

সাধারণের ভোট ভাবনা

মেজর (অব.) মান্নানকে দুদকে তলব

ডিজিটাল আইন স্বাধীন সাংবাদিকতার অন্তরায়

২৯শে সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের নাগরিক সমাবেশ

ঢাকায় বৃহস্পতিবার বিএনপি’র সমাবেশ

জগাখিচুড়ির ঐক্য টিকবে না

৫৭ ধারার মামলায় চবি শিক্ষক কারাগারে

পদ্মার ডান তীরে ভাঙন ফের আতঙ্ক

মালদ্বীপে বিরোধীদের অভাবনীয় জয়

চট্টগ্রামে গণধর্ষণের শিকার দুই কিশোরী

বিচারকের প্রতি দুই আসামির অনাস্থা

ভালো মানুষকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন: প্রেসিডেন্ট

শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার কথা বলেননি ড. কামাল