ইকরাম হত্যায় ৩৯ জনের মৃত্যুদণ্ড

শেষের পাতা

ফেনী প্রতিনিধি | ১৪ মার্চ ২০১৮, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:৪৪
ফেনীর ফুলগাজীর উপজেলা চেয়ারম্যান একরামুল হককে হত্যার দায়ে ৩৯ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। তবে খালাস পেয়েছেন বিএনপি নেতা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে মিনার চৌধুরীসহ ১৬ জন। মঙ্গলবার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আমিনুল হক এ রায় দেন। ২০১৪ সালের ২০শে মে ফেনীর বিলাসী সিনেমা হলের সামনে ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভাপতি একরামুল হককে প্রকাশ্যে গুলি করে, কুপিয়ে ও গাড়িসহ পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায়
নিহতের ভাই রেজাউল হক জসিম বাদী হয়ে বিএনপি নেতা মাহাতাব উদ্দিনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৩০-৩৫ জনকে আসামি করে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন। ওই বছরের
২৮শে অগাস্ট ৫৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ।
হত্যার প্রায় দুই বছর পর ২০১৬ সালের ১৫ই মার্চ ৫৬ জনের বিরুদ্ধে বিচার শুরু করে আদালত। এ বছরের ২৮শে জানুয়ারি এ মামলার যুক্তিতর্ক শুরু হয়। এ মামলায় বিভিন্ন সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ৪৪ জনকে গ্রেপ্তার করে। তাদের মধ্যে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন ১৫ জন। আসামিদের মধ্যে কারাগারে রয়েছেন মিনার চৌধুরীসহ ৩৬ জন। আর জামিনে বেরিয়ে পলাতক রয়েছেন নয়জন। এছাড়া মামলার শুরু থেকে ১০ আসামি পলাতক এবং সোহেল ওরফে রুটি সোহেল নামে এক আসামি র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-০৩-১৪ ০১:০০:১০

হত্যাকাণ্ড গুলির সঠিক বিচার তো হচ্ছে। ফাঁসির আদেশ হচ্ছে। তবুও হত্যাকাণ্ড থামছে না। জনসংখ্যা বিস্ফোরণ কি সে জন্য দায়ী ? খুন করলে ফাঁসি হবে জেনেও কেউ ভীত নয় মনে হচ্ছে।

আপনার মতামত দিন

সোনা কারসাজির নিরপেক্ষ তদন্ত চায় ফিনল্যান্ড বিএনপি

চবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানবন্ধনেও ছাত্রলীগের হামলা!

রিমান্ডে আসাদ পংপং

ছোট বড় সকল নির্বাচনে স্বচ্ছতা দেখতে চায় ইইউ

ঢাকায় সর্বোচ্চ গরম

দেশের বাইরে পাসের হার ৯২ দশমিক ২৮ শতাংশ

জাবিতে ১৯ বিভাগের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে মানববন্ধন

আবারও বড় ঋণ কেলেঙ্কারিতে জনতা ব্যাংক

বিবি’র ওপর ‘আস্থা’ রাখুন!

হুমায়ূন আহমেদের শেষের দিনগুলো

দিনাজপুরে ছেলেরা পিছিয়ে

আরিফকে সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন সেলিম

যশোর বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বললেন বিপর্যয় নয়, কম পাস

ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন ২০ থেকে ২৬ জুলাই

গতানুগতিক পড়ালেখায় ভাল ফল সম্ভব নয়

পাকিস্তানের নির্বাচনে দৃষ্টি সেনাবাহিনীর!